২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সুনামগঞ্জে বালু-পাথর নিয়ে সংঘর্ষ ॥ গুলিবিদ্ধ ১৫


নিজস্ব সংবাদদাতা, সুনামগঞ্জ, ১৩ জুন ॥ সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার ফাজিলপুর বালি-পাথর মহালে চাঁদাবাজ-পুলিশ ও গ্রামবাসীর সংঘর্ষে ৫০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ হয়েছে ১৫ জন। আটক হয়েছে ৬ জন। শনিবার দুপুর ১২টা থেকে ২টা পর্যন্ত সংঘর্ষ চলে। প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ফাজিলপুর বালি পাথর মহালে অবৈধ ইজারাদার তোফাজ্জল হোসেন চিহ্নিত সন্ত্রাসী রহমগীরের নেতৃত্বে তাহিরপুর থানা পুলিশের সামনে প্রকাশ্য অস্ত্রের মহড়া প্রদর্শন করে বালু ও পাথরের নৌকা এবং ভলগেট থেকে চাঁদা তুলতে গেলে এলাকাবাসী ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এ সময় পুলিশ এলাকাবাসীর উপর গুলিবর্ষণ করলে পরিস্থিতি খারাপ হতে থাকে। গ্রামবাসী ইজারাদার ও পুলিশ ত্রিমুখী সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষে তাহিরপুর উপজেলার দক্ষিণকুল, মাহতাবপুর, বালিজুরী, সীমানা, সিসকা ও লোহাছুড়া গ্রামের মানুষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় পুলিশ ও চাঁদাবাজদের এলোপাতাড়ি গুলিতে প্রায় ১৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়। উভয়পক্ষের সংঘর্ষে শতাধিক লোক আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল গনির পুত্র রতি মিয়ার অবস্থা গুরুতর। তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্য আহতদের তাহিরপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান, ওসি শহিদুল্লাহ উপস্থিত হয়ে চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসী রহমগীরসহ ৬ জনকে আটক করে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল গনি জানান, পুলিশের সামনে রহমগীর, কাশেম তাদের সহযোগীদের নিয়ে প্রকাশ্য কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান, দীর্ঘদিন যাবত এ চক্রটি গ্রামবাসীদের উপর আনা হয় ট্যাক্সের নামে চাঁদাবাজি ও নির্যাতন করে আসছে। এদের নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে সাধারণ মানুষ ও বালি পাথর শ্রমিক তাদের প্রতিরোধ করে। এদের উপযুক্ত শাস্তি নিশ্চিত করা না গেলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারে। আমরা চিহ্নিত চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসীদের পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি। এদের আটকের পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার মোঃ হারুন রশিদ জানান, ৬ চাঁদাবাজকে আটক করা হয়েছে এবং পরিস্থিতি শান্ত আছে। এ ঘটনায় পুলিশ ২৫ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছোড়ে।