১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

আবারও স্থগিত শাফাকাতের মৃত্যুদণ্ড


অনলাইন ডেস্ক ॥ পাকিস্তানে এ নিয়ে চারবারের মতো শাফাকাত হোসাইনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর স্থগিত হল। মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের কয়েক ঘণ্টা আগে সোমবার রাতে এ স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়। খবর ডননিউজের।

করাচির কেন্দ্রীয় জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ৯ জুন (মঙ্গলবার) শাফাকাতের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তারিখ ছিল। কিন্তু কার্যকরের কয়েক ঘণ্টা আগে তা স্থগিতের নির্দেশ আসে।

২০০৪ সালে করাচিতে ৭ বছর বয়সী এক শিশুকে অপহরণ ও হত্যার অপরাধে শাফাকাতকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

শাফাকাতের পরিবার ও মানবাধিকার সংস্থাগুলোর দাবি, হত্যাকাণ্ডের সময় শাফাকাত কিশোর ছিল। তাই অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য আইন অনুযায়ী তার ফাঁসি আইনসঙ্গত নয়।

অপরদিকে তদন্ত কর্মকর্তাদের দাবি হত্যাকাণ্ডের সময় শাফাকাতের বয়স ছিল ২৩।

শাফাকাতের কোনো প্রাতষ্ঠানিক সনদ বা জন্ম নিবন্ধন না থাকায় তার বয়সের বিষয়টি স্পষ্টরূপে প্রমাণ করা যাচ্ছে না।

এ অবস্থায় শাফাকাতের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর না করতে পাকিস্তান সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আসছে জাতিসংঘ, এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও দেশীয় মানবাধিকার সংস্থা।

চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি প্রথমবারের মতো শাফাকাতের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু বিক্ষোভের পরিপ্রেক্ষিতে ওই দিন তা কার্যকর না করে অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দেয় পাকিস্তান সরকার।

এরপর ১৯ মার্চ পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করা হলেও তা স্থগিত করা হয়। প্রথমে ৭২ ঘণ্টার জন্য ও পরবর্তী সময়ে স্থগিতাদেশ ৩০ দিনের জন্য বাড়ানো হয়।

কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার জমা দেওয়া প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ৬ মে আবারও শাফাকাতের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। কিন্তু এর একদিন আগে জাস্টিস প্রজেক্ট পাকিস্তানের (জেপিপি) করা এক পিটিশনের পরিপ্রেক্ষিতে তা স্থগিত করে ইসলামাবাদ হাইকোর্ট।

এরপর গত ১ জুন করাচির সন্ত্রাসবিরোধী আদালত শাফাকাতের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের নির্দেশ দেয়। নির্দেশনা অনুযায়ী ৯ জুন তা কার্যকরের কথা ছিল।