২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

রাজধানীর তিন কলেজে পরীক্ষার মাধ্যমে ভর্তি


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ২০১৫-২০১৬ শিক্ষাবর্ষে মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট বা এসএসসি পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে একাদশ শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তির বিষয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জারি করা নীতিমালা ঢাকার নটরডেম, হলিক্রস ও সেন্ট জোসেফ কলেজের জন্য ছয় মাস স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। ফলে নিজস্ব নীতিতে ছাত্রছাত্রী ভর্তি নিতে পারবেন তাঁরা। ফলে এসএসসি-সমমানের পরীক্ষার ফলের মেধাতালিকায় নয়, ভর্তি পরীক্ষার নিয়েই রাজধানীর এই তিন কলেজ এইচএসসিতে ভর্তি করতে বে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি পর বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি মোঃ ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ সোমবার এ আদেশ প্রদান করেছেন।

আদালত তিন মাসের স্থগিতাদেশের পাশাপাশি রুলও জারি করেছে। রুলে তিন কলেজের ক্ষেত্রে মেধা তালিকায় ভর্তির নীতিমালার ৬টি ধারা কেন বেআইনী ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়েছেনে।আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষা সচিব, ঢাকার চেয়ারম্যান ও কলেজ পরিদর্শককে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী ফিদা এম কামাল। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার তানিম হাসান শাওন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন, ডেপুটি এ্যার্টনি জেনারেল কাজী জিনাত হক।

১ জুন সারাদেশে উচ্চ মাধ্যমিক ভর্তির ক্ষেত্রে মেধাতালিকা অনুসারে ভর্তির জন্য একটি নীতিমালা জারি করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয় সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম খান। এই নীতিমালার ৩.১, ৪.১, ৪.২, ৫.৩, ৯.১ ও ৯.৩ ধারার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করে তিন কলেজের অধ্যক্ষগণ। এরা হলেন , হলিক্রস কলেজের অধ্যক্ষ সিস্টার শিখা এল গোমেজ, নটরডেম কলেজের অধ্যক্ষ ফাদার হেমন্ত পিয়াস রোজারিও এবং সেন্ট জোসেফ কলেজের অধ্যক্ষ ব্রাদার রবি ফিউরিফিকেশন। নীতিমালার ৩.১ ধারায় বলা হয়েছে, ভর্তির জন্য কোন বাছাই বা ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে না। কেবল শিক্ষার্থীদের এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতে ভর্তি করা হবে।

৪.১ ধারায় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অনলাইন অথবা টেলিটক এসএমএস এর মাধ্যমে আবেদন করতে হবে। ৪.২ আবেদন ফি ১৫০, সর্বোচ্চ ৫ কলেজে পছন্দক্রম দিতে পারবে। অনলাইনে একবার আবেদন করতে পারবে। প্রতি কলেজের জন্য ১২০ টাকা। ৫.৩ এসএমএস প্রাপ্তির পর মেধাক্রম অনুসারে কলেজের নোটিস বোর্ড বা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে হবে। কোন কারণে আসন শূন্য হলে বোর্ডের পছন্দ অনুসারে ২য় মেধাক্রম প্রকাশ করতে হবে। ৯.১ সকল কলেজে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নীতিমালা প্রযোজ্য হবে। ৯.৩-এ নীতিমালা না মানলে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।