১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

সড়ক দুর্ঘটনায় ডাক্তারসহ নিহত পাঁচ


জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ সড়ক দুর্ঘটনায় চিকিৎসক, শিশু ও স্কুলছাত্রসহ পাঁচজন নিহত হয়েছেন। খবর স্টাফ রিপোর্টার, নিজস্ব সংবাদদাতা ও সংবাদদাতাদের-

সিলেট ॥ বুধবার রাত ১টায় সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের বিশ্বনাথ দিঘলী এলাকায় ট্রাক ও প্রাইভেট কারের সংঘর্ষে চিকিৎসকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ফয়ছল আহমদ (৩৫) ও প্রাইভেট কার চালক ইসমাইল।

কিশোরগঞ্জ ॥ বৃহস্পতিবার সকালে পাকুন্দিয়ায় যাত্রীবাহী বাস চাপায় শরীফুল ইসলাম (১৮) নামে স্কুলছাত্র ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছে। সে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার বাতুয়াদিয়া গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে ও স্থানীয় উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় পাস করেছিল।

নবীনগর ॥ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নবীনগরে জেসমিন আক্তার (৫) নামে এক শিশু অটোরিক্সার চাপায় নিহত হয়েছে বৃহস্পতিবার সকালে।

হবিগঞ্জ ॥ বৃহস্পতিবার বিকেলে হবিগঞ্জের ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের চুনারুঘাট এলাকায় অটোরিক্সা নিয়ন্ত্রণ হারালে নাঈম (১৮) নামে ঘটনাস্থলেই এক ব্যবসায়ী নিহত এবং আহত হয়েছে ২ যাত্রী।

চেয়ারম্যানকে প্রত্যাহারের দাবিতে ফের আন্দোলন

রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবুল হায়াতকে প্রত্যাহারের দাবিতে আবারো আন্দোলনে নেমেছেন শিক্ষকরা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নগরীর লক্ষীপুর মোড়ে জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্ট রাজশাহী জেলা শাখার উদ্যোগে প্রতীকী অনশন পালন করা হয়। কর্মসূচী থেকে শিক্ষকরা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, আগামী ২০ জুনের মধ্যে বোর্ড চেয়ারম্যান পদত্যাগ না করলে তাকে টেনেহিঁচড়ে নামানো হবে।

ফ্রন্টের রাজশাহী জেলা শাখার আহ্বায়ক অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশার সভাপতিত্বে প্রতীকী অনশন চলাকালীন বক্তব্য রাখেন ভাষাসৈনিক আবুল হোসেন, ফ্রন্টের নেতা মোকাদ্দেসুর রহমান, আব্দুল খালেক, বাবু রাজকুমার, আলহাজ আশরাফ উদ্দিন, সাহাব উদ্দিন, আশরাফুল ইসলাম সুলতান, মারুফ হোসেন, কামরুজ্জামান ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন শিক্ষা প্রশাসনের গতিশীলতা এবং শিক্ষার মানোন্নয়নে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। কিন্তু ড. আবুল হায়াত চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে এই প্রতিষ্ঠানকে দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত করেছেন।

এরই মধ্যে তিনজন দ্বিতীয় শ্রেণীর কর্মকর্তাকে শূন্যপদ না থাকা সত্ত্বেও প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তা হিসেবে পদোন্নতি দিয়েছেন। এই তিনজন কর্মকর্তা হলেন বোর্ডের চিহ্নিত দুর্নীতিবাজ।