২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

মানবপাচার ॥ আত্মসমর্পণ করলেন থাই সেনা কর্মকর্তা


অনলাইন ডেস্ক ॥ মানবপাচারের সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগ মাথায় নিয়ে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের পুলিশ কার্যালয়ে আত্মসমর্পণ করেছেন দেশটির উচ্চপদস্থ সেনা কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট জেনারেল মানাস কংপাল।

বুধবার সকালে স্থানীয় সময় বেলা ১১টায় সেনাবাহিনীর আইন কর্মকর্তাদের সঙ্গে তিনি ব্যাংকক পুলিশপ্রধান সমিয়ত পুম্পুন মুয়াংয়ের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এরপর তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শংখলার প্রাদেশিক পুলিশ অঞ্চল ৯-এর কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

এর আগে রবিবার মানবপাচারে জড়িত থাকার অভিযোগে ওই সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আবেদনে আদালত সম্মতি দেন। না থাবি প্রদেশের আদালত পুলিশের করা ওই আবেদনে সোমবার সম্মতি দেন।

জেনারেল মানাস থাইল্যান্ডের রাজকীয় সেনাবাহিনীর সিনিয়র উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মানবপাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার পর তাকে সেনাবাহিনী থেকে বরখাস্ত করা হয়।

গত ১ মে থাইল্যান্ডের গহীন জঙ্গলে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের অভিবাসীদের গণকবর আবিষ্কারের পর মানবপাচারের সঙ্গে জড়িত থাকার ব্যাপারে এই প্রথম দেশটির সামরিক বাহিনীর সিনিয়র কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হলো।

ওই ঘটনার পর ৮২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। এর মধ্যে ৫১ জনকে আটক করা হয়েছে।

মানাস কংপালের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার থেকে মানবপাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে। থাইল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চল দিয়ে মালয়েশিয়ায় পাঠানো হয় অভিবাসনপ্রত্যাশীদের।

গত মে মাসে মালয়েশিয়ার সীমান্তবর্তী শংখলা প্রদেশে গণকবরের সন্ধান পায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ ছাড়া গহিন জঙ্গলে কয়েকশ অভিবাসনপ্রত্যাশীকে জীবিত উদ্ধার করে তারা। মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষও তাদের সীমান্ত অঞ্চলে শতাধিক কবরের সন্ধান পায়। ধারণা করা হচ্ছে, অভিবাসনপ্রত্যাশীদের হত্যা করে এসব কবরে দাফন করা হয়।