১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

এ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন পঞ্চগড়ের ডিসি


স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় ॥ জেলার শতকরা ৯৩ ভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আইসিটি সুবিধার আওতায় আসায় এবং ল্যাপটপ ও প্রজেক্টরের মাধ্যমে ডিজিটাল কনটেন্ট (পাঠটীকা) তৈরি করে ২শ’ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালু করায় বর্ষসেরা জেলা প্রশাসক ‘মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম এ্যাওয়ার্ড-২০১৫’ পেতে যাচ্ছেন। মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন এ্যাওয়ার্ডটি গ্রহণ করবেন।

জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, পঞ্চগড়ের ৫ উপজেলায় ৩শ’ ৮১টি সরকারী-বেসরকারী মাধ্যমিক স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজের মধ্যে ২শ’ ২১টিতে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালুর জন্য সরকারীভাবে ল্যাপটপ ও প্রজেক্টর পাওয়া যায়। আরও ৬২টি ল্যাপটপ ও প্রজেক্টর বরাদ্দ পাওয়া গেছে। সূত্রমতে, এর মধ্যে ২শটিতে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালু রয়েছে। মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালু এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকগণ বিষয়ভিত্তিক ডিজিটাল কনটেন্ট তৈরি করে ল্যাপটপ ও প্রজেক্টরের মাধ্যমে ক্লাস নিতে দক্ষতা অর্জনে সক্ষম হয়েছে এবং নিয়মিতই ক্লাস নেয়া হচ্ছে। মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালুর ফলে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরাও একদিকে যেমন পাঠদানে মনোযোগী ও আগ্রহী হয়ে উঠছে অন্যদিকে ক্লাসে উপস্থিতির হারও বেড়েছে। পঞ্চগড় সরকারী বিপি স্কুলের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র তাসনিম এ আযম দীপ্র জানায়, মাল্টিমিডিয়া ক্লাসে যে সব বিষয় পড়ানো হয় তা খুব সহজেই জানা হয়ে যায়। পড়া ভুলে যাওয়ার আশঙ্কা কম থাকে। আনন্দের সঙ্গে টিচারদের পড়া মনোযোগ দিয়ে শুনি আর মনে রাখি। বোদা পাইলট গার্লস স্কুল এ্যান্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম সাবুল বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম চালুর জন্য ইতোমধ্যে জেলার প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ২ জন শিক্ষককে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। প্রশিক্ষিত এসব শিক্ষকই এখন তাদের নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদের ইন-হাউস প্রশিক্ষণ প্রদান অব্যাহত রেখেছেন বলে তিনি জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় এবং ইউএনডিপির সহযোগিতায় একসেস টু ইনফর্মেশন (এটুআই) প্রকল্পের আওতায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় পরিচালিত মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম কার্যক্রম ইতোমধ্যে জেলার প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। আর যে কারণে জেলার শতকরা ৯৩ ভাগ সরকারী-বেসরকারী মাধ্যমিক স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজ মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুমের জন্য রেজিস্ট্রেশনভুক্ত হয়েছে; যা নিয়মিতভাবে ড্যাসবোর্ডে আপলোড করা হচ্ছে। ফলে, দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে পঞ্চগড় জেলায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম নিয়মিত মনিটরিং ও শিক্ষায় তথ্যপ্রযুক্তির বিকাশে অসামান্য অবদান রাখায় পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক বর্ষসেরা জেলা প্রশাসক নির্বাচিত হন।