২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু


সংসদের বাজেট অধিবেশন শুরু

সংসদ রিপোর্টার ॥ সরকার ও বিরোধী দলের সরব উপস্থিতিতে দশম জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় বাজেট (ষষ্ঠ) অধিবেশন সোমবার শুরু হয়েছে। বিকেল সাড়ে ৫টায় স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। এর আগে সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে আগামী ৯ জুলাই পর্যন্ত বাজেট অধিবেশন চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। অধিবেশনে আগামী ৩০ জুন ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেট পাস হবে।

আগামী বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ৩টায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সংসদে ২০১৪-১৫ অর্থবছরের জন্য বাজেট প্রস্তাবনা উত্থাপন করবেন। এবারও তিনি ডিজিটাল ডিসপ্লের মাধ্যমে বাজেট উপস্থাপন ও বক্তৃতা করবেন। অধিবেশন শুরুর আগে সোমবার বিকেল ৪টায় জাতীয় সংসদ ভবনে স্পীকারের সভাপতিত্বে সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় অধিবেশন শুরু হবে। এর পর থেকে প্রতিদিন বিকেল সাড়ে ৫টায় অধিবেশন বসবে। তবে রমজান মাসে প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টায় অধিবেশন শুরু হয়ে বেলা আড়াইটা পর্যন্ত চলবে। এছাড়া আগামী ২০ ও ২৭ জুন শনিবারেও অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। তবে প্রয়োজনে এ সময়সীমা স্পীকার বাড়াতে বা কমাতে পারবেন।

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে কার্যোপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে কমিটির সদস্য, সংসদ নেতা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, হুসেইন মুহম¥দ এরশাদ, আমির হোসেন আমু, তোফায়েল আহমেদ, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বী মিয়া, আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ, রাশেদ খান মেনন, চীফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, মইন উদ্দীন খান বাদল এবং আইন, বিচার ও সংসদবিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ আমন্ত্রণে বৈঠকে অংশ নেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

এদিকে, স্পীকারের সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনের শুরুতেই ৫ সদস্যের সভাপতিম-লী মনোনীত করা হয়। মনোনীতরা হলেন আবুল কালাম আজাদ, আবদুল মতিন খসরু, ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, ফখরুল ইমাম ও শিরীন নঈম। স্পীকার ও ডেপুটি স্পীকারের অনুপস্থিতিতে সভাপতিম-লীর সদস্যদের মধ্যে যার নাম আগে থাকবে তিনি সংসদ কার্য পরিচালনা করবেন।

এর পরে সদ্য প্রয়াত সাবেক মন্ত্রী-এমপিসহ দেশী-বিদেশী ১৪ জনের নামে শোক প্রস্তাব উত্থাপন ও তা আলোচনা শেষে সর্বসম্মতিক্রমে গ্রহণ করা হয়। শোক প্রস্তাব গৃহীত হওয়ার পর প্রয়াতদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। যাদের নামে শোক প্রস্তাব গ্রহণ করা হয় তারা হলেন সৌদি আরবের বাদশা আবদুল্লাহ বিন আবদুল আজিজ, আধুনিক সিঙ্গাপুরের স্থাপতি ও প্রথম প্রধানমন্ত্রী লি কুয়ান ইউ, সাবেক এমপি আফছার আলী আহমেদ, এ্যাডভোকেট আমজাদ হোসেন, ড. মোহাম্মদ সেলিম, মুহাম্মদ আশরাফ আলী, মাইন উদ্দিন ভুঁইয়া, মজিবুর রহমান মঞ্জুর, ফজলুর রহমান সুলতান, চৌধুরী মোতাহার হোসেন, নওশের আলী সরকার বাদশা, সাবেক গণপরিষদ সদস্য সেতাব আলী খান, সংসদ সচিবালয়ের ব্যক্তিগত কর্মকর্তা মোঃ আনিচ উদ্দিন এবং সংসদ সচিবালয়ের অফিস সহায়ক শাজাহান খান। এছাড়াও ঐতিহাসিক আগরতলা মামলার আসামি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (অব) আবদুর রউফ, বঙ্গবন্ধুর সহকারী প্রেস সচিব আমিনুল হক, কিংবদন্তি ভাস্কর নভেরা আহমেদ, সাংবাদিক হোসাইন জাকির এবং কিংবদন্তি অভিনেতা সিরাজুল ইসলামের মৃত্যুতেও জাতীয় সংসদ গভীর শোক প্রকাশ করেছে। নেপালের সাম্প্রতিক ভূমিকম্পে নিহতদের প্রতি গভীর শোক জানিয়েছে সংসদ।

অধিবেশনের সূচনা বক্তব্যে স্পীকার সকল সংসদ সদস্যকে সংসদীয় কার্যক্রমে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের মাধ্যমে জনগণের দেয়া দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: