১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বাস ও অটোশ্রমিকদের সংঘর্ষে যানবাহন চলাচল বন্ধ, আহত ২০


স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহীর বাঘায় বাস ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় অন্তত ৪০টি সিএনজি ও ৫ টি বাস ভাংচুর করা হয়। দুই পক্ষের হামলা ও সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে ৮ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

আজ সোমবার বেলা ১০ টা থেকে ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। ঘটনার পর থেকে বাঘা ও চারঘাটের সঙ্গে রাজশাহী শহরের সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। বাস ও সিএনজি চালিত অটোরিকশা শ্রমিকদের মুখোমুখি অবস্থানের মুখে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, বাস শ্রমিকদের বাধার মুখে বাঘা ও চারঘাট থেকে বেশ কয়েকদিন ধরে সিএনজি চালিত অটোরিকশা চলচলন বন্ধ ছিলো। এর প্রেক্ষিতে সোমবার বেলা ১০ টার দিকে অন্তত ৫০ টি সিএনজি চালিত অটোরিকশা নিয়ে শ্রমিকরা স্ট্যান্ডে জমা হয়। এখবর পেয়ে বাস শ্রমিকরা সংঘবদ্ধ হয়ে লাঠিসোঠা নিয়ে তাদের ওপর হামলা ও অটোরিকশা ভাংচুর করে। এ সময় প্রতিরোধে অটোরিকশা শ্রমিকরা এগিয়ে আসলে শুরু হয় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। এসময় উভয় পক্ষের অন্তত ২০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে বাস শ্রমিক রঞ্জু, নুরুজ্জামান, স্বাধীন, অটোরিকশা শ্রমিক রবি, আরিফ, কুদ্দুসসহ ৮ জনকে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

অটোরিকশা শ্রমিকদের দাবি বাস শ্রমিকরা অতর্কিতভাবে তাদের ওপর হামলা চালিয়ে অন্তত ৪০ টি অটোরিকশা ভাংচুর করে। তবে বাস শ্রমিকরা জানায়, তাদের ৫ টি বাস ভাংচুর করা হয়েছে।

এদিকে ঘটনার পর থেকে বাঘা থেকে চারঘাট ও রাজশাহী শহরমুখী সব ধরণের যানবাহন বন্ধ রয়েছে। ফলে রাজশাহীমুখী চারঘাট বাঘার হাজারো মানুষ পথে আটকা পড়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে রাজশাহী জেলা সহকারী পুলিশ সুপার (পুঠিয়া সার্কেল) আসলাম উদ্দিন জানান, দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ থামাতে পুলিশ ৬ রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।