২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশ সফরে তিস্তা নিয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলবেন মোদী


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ সফরে চিস্তা চুক্তির জটিলতা নিয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরোন্দ্র মোদী। এ যাত্রা তিস্তা চুক্তি না-করার আশ্বাসে তাঁর আসন্ন ঢাকা সফরে সঙ্গী হিসেবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী। তবে বাংলাদেশে গিয়ে তিস্তার পানি বণ্টন নিয়ে প্রকাশ্যে কোনও কথা না-বললেও শেখ হাসিনার সঙ্গে আলোচনা করে জট ছাড়াতে উদ্যোগী হবেন প্রধানমন্ত্রী এবং তাতে কোনও আপত্তি নেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর। ভারতের আনন্দ বাজার পত্রিকা সূত্রে এসব তথ্য জানাগেছে।

পত্রিকাটির প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে, মোদীর বাংলাদেশ সফর নিয়ে সম্প্রতি তাঁর সঙ্গে বৈঠক করেছেন ভারতে নিযুক্ত সে দেশের হাই কমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলি। সেই বৈঠকেই মোদী জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর সফরের অগ্রাধিকার কী। বাংলাদেশের সঙ্গে স্থলসীমান্ত চুক্তি সংসদের অনুমোদন পাওয়ার পরে সেই চুক্তি স্বাক্ষর করতেই ৬ জুন ঢাকা যাচ্ছেন মোদী। তিনি মনে করেন, স্থলসীমান্ত চুক্তি করাটা মোটেই ছোটখাটো ব্যাপার নয়। এর ফলে দু’দেশের কয়েক লক্ষ মানুষের দীর্ঘ কয়েক দশকের সমস্যার সমাধান হবে। এই চুক্তি নিয়ে নানা রাজ্যে বহু মতপার্থক্য ছিল। সে সবের নিরসন ঘটিয়ে দু’দেশের মধ্যে সীমান্তরেখা চূড়ান্ত করাকে ঐতিহাসিক ঘটনা বলেই মনে করছে ভারত সরকার।

স্থলসীমান্ত চুক্তির পরে যে বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশের প্রত্যাশা সব চেয়ে বেশি, সেটা অবশ্যই তিস্তা। এ নিয়ে জটিলতা কী ভাবে কাটবে, তা এখনও স্পষ্ট নয়। মোয়াজ্জেম আলি আজ বলেন, ‘‘২০১১ সালে তিস্তা চুক্তির একটি খসড়া তৈরি হয়েছিল। তার ভিত্তিতেই দু’দেশের মধ্যে আলোচনা হয়।’’ কিন্তু ওই খসড়া নিয়ে আপত্তি তুলেছিলেন মমতা। তাঁর যুক্তি ছিল, যে সূত্র মেনে জলবণ্টনের কথা বলা হচ্ছে, তাতে পশ্চিমবঙ্গ, বিশেষ করে উত্তরবঙ্গ ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

২০১২ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশে গিয়ে তিস্তা চুক্তি স্বাক্ষর করে ফেলতে চেয়েছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ। কিন্তু মমতার আপত্তির জেরে তাঁকে পিছিয়ে আসতে হয়। কেন্দ্র তাঁকে না-জানিয়ে চুক্তি নিয়ে অগ্রসর হয়েছে, এই অভিযোগে মনমোহনের সঙ্গে ঢাকা যেতেও অস্বীকার করেন মমতা। কিন্তু তিনি যে তিস্তা চুক্তির বিরোধী নন, সে কথা একাধিক বার বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। গত ২০ ফেব্রুয়ারি ঢাকা গিয়ে শেখ হাসিনার সঙ্গে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলোচনা করে এসেছেন তিনি।

হামিদ-উজ-জামান মামুন