২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

অভিবাসী সমস্যার দায় একার নয়: মায়ানমার


অনলাইন ডেস্ক॥ থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অভিবাসন সমস্যা নিয়ে আঞ্চলিক সম্মেলন শুরু হয়েছে। সম্মেলনে শুরুতেই অভিবাসী সমস্যার দায় নিয়ে পাল্টা তোপ দেগেছে মায়ানমার। সবাই যখন এশিয়ার অভিবাসন সমস্যার জন্য মায়ানমারের দিকে আঙুল তুলছে, তখন এ ব্যাপারে নিজেদের দায় অস্বীকার করেছে দেশটি।

শুক্রবারের সম্মেলনে মায়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রধান হিটিন লিন বলেন, তার দেশ মানবপাচার রোধে সবার সঙ্গে কাজ করবে। তবে এজন্য শুধুমাত্র মায়ানমারকে দোষ দেওয়া যাবে না।

তিনি বলেন, দোষারোপ কোনো ফল বয়ে নিয়ে আসবে না। এটা আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছতে বাঁধা দেবে।

মায়নামারের প্রতিনিধি দল জানায়, পরিস্থিতি খুবই ভয়াবহ। ঠিক কতজন অভিবাসী এখনও সাগরে আটকে আছেন তা জানা যায়নি। জাতিসংঘ বলছে, এখনও ২ হাজার ৬০০ লোক সাগরে আটকে আছেন।

সম্মেলনে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আঞ্চলিক সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব সাউথ ইস্ট এশিয়ান নেশনস (আসিয়ান) প্রতিনিধিরা যোগ দিয়েছেন। সেইসঙ্গে যুক্তরাষ্ট্র ও জাতিসংঘের প্রতিনিধিরাও আছেন।

সাম্প্রতিককালে বাংলাদেশ ও মায়ানমারের রোহিঙ্গাদের অবৈধভাবে নৌ-পথে থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া এবং মালয়েশিয়া যাওয়ার বিষয়টি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নজরে আসে। থাইল্যান্ডের গহীন অরণ্যে শত শত গণকবর পাওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র ও জাতিসংঘের পক্ষ থেকে অভিবাসন সমস্যা সমাধানে চাপ আসে। এরপর সাগরে ভাসমান হাজার হাজার অভিবাসীকে উদ্ধারে তৎপর হয় থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া ও ইন্দোনেশিয়া।

এখনও অনেকে অথৈ সমুদ্রে ভাসমান অবস্থায় মানবেতর দিন কাটাচ্ছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আজকের সম্মেলনে অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ, কম্বোডিয়া, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, লাওস, মালয়েশিয়া, মায়ানমার, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, পাপুয়া নিউ গিনি, শ্রীলংকা, পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও ইরানের প্রতিনিধিরা অংশ নিয়েছে।

এছাড়া জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর, আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা আইওএম, জাতিসংঘের অফিস অন ড্রাগস অ্যান্ড ক্রাইমের (ইউএনওডিসি) প্রতিনিধিরা ব্যাংকক বৈঠকে উপস্থিত রয়েছে।