১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

‘মিথ্যা সংবাদ’ প্রকাশের দায়ে প্রথম আলোকে ১ লাখ টাকা জরিমানা


স্টাফ রিপোর্টার ॥ গাজীপুরের এ্যাপেক্স কারখানায় নারী শ্রমিকের ছুটি না পেয়ে টয়লেটে সন্তান প্রসব করা সংক্রান্ত মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের দায়ে দৈনিক প্রথম আলোকে এক লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি আবু তাহের মোঃ সাইফুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ মঙ্গলবার এ আদেশ দেন। মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের মাধ্যমে নারী শ্রমিকের মান-মর্যাদা ক্ষুণœ করায় তাকে এক মাসের মধ্যে ক্ষতিপূরণ হিসেবে এক লাখ টাকা দেয়ার আদেশ দেন আদালত।

আদেশের পর ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস জনকণ্ঠকে বলেন, “সঠিক খবর প্রকাশিত না হওয়ায় ওই নারী সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়েছেন। এজন্য প্রথম আলো কর্পোরেট বডিকে আদালত এক মাসের মধ্যে ওই নারীকে এক লাখ টাকা দিতে বলেছে।” অন্যদিকে, এ্যাপেক্স কারখানার পক্ষের আইনজীবী আসাদুজ্জামান সাংবাদিকদের বলেন, পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আদালত স্বপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করেন। ওই রুল নিষ্পত্তি করে বলেছেন, ভুল খবর প্রকাশের কারণে ওই নারীর মর্যাদাহানি হয়েছে। এর দায় হিসেবে তাকে ১ লাখ টাকা দেয়ার নির্দেশ দেন। এছাড়া কোম্পানির অনেক ক্ষতি হয়েছে এ্যাপেক্স কারখানার আইনজীবীর এমন শুনানিতে আদালত বলেছেন, তারা আইনের আশ্রয় নিতে পারেন ।

এ সংবাদটি প্রথম আলোতে গত ১০ মে প্রকাশিত হওয়ার পর হাইকোর্টের বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে বিষয়টি তদন্ত করতে স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছিলেন, তলব করা হয়েছিল কারখানার কর্মকর্তাদের। নির্দেশ পেয়ে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তদন্ত করে এ্যাপেক্স ফুটওয়্যার কারখানায় ওই ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়নি উল্লেখ করে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেন।

দৈনিক প্রথম আলোতে ‘ছুটি না পেয়ে কারখানার টয়লেটে সন্তান প্রসব’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছিল। প্রতিবেদনটি আমলে নিয়ে গত ১০ মে এ্যাপেক্স কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ নাসিম মনজুর, পরিদর্শক আজিজুর রহমান এবং সুপারভাইজার রতন মিয়াকে তলব করেন একই বেঞ্চ। স্বপ্রণোদিত হয়ে দেয়া এ আদেশে ২৪ মে সকাল সাড়ে দশটায় এ তিন কর্মকর্তাকে হাজির হয়ে কর্মীকে ছুটি না দেয়ার বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়।

পাশাপাশি এ ঘটনা তদন্ত করে কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দেয়া হয়। রবিবার ওই তিন কর্মকর্তা আদালতে হাজির হওয়ার পর তাদের ব্যক্তিগত হাজিরা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। তবে এ বিষয়ে ইউএনও-এর প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপনের জন্য মঙ্গলবার পর্যন্ত সময় দেয়া হয়। পরে ১৩ মে ‘ভুল খবরের জন্য দুঃখিত’ শীর্ষক সংশোধনী ছাপা হয় দৈনিক প্রথম আলোতে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: