১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ফ্যালকাওয়ের ম্যানইউ অধ্যায় শেষ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অনেক স্বপ্ন নিয়ে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে এসেছিলেন রাদামেল ফ্যালকাও। ধারে ওল্ডট্রাফোর্ডে এলেও মনের কোণে ইচ্ছা ছিল পারফর্মেন্স করে পাকাপাকিভাবে থেকে যাওয়া। কিন্তু না, এই মনোবাসনা পূরণ হলো না কলম্বিয়ান স্ট্রাইকারের। ২০১৪-১৫ মৌসুমে বাজে পারফর্মেন্সের কারণে এক বছর ম্যানইউর হয়ে খেলেই ফিরে যেতে হচ্ছে পুরনো ফরাসী ক্লাব এএস মোনাকোতে। ফ্যালকাওয়ের সঙ্গে স্থায়ী চুক্তি না করার সিদ্ধান্ত রবিবার জানিয়ে দিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। গত মৌসুমে আট মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে মোনাকো থেকে এক বছরের ধারের চুক্তিতে ম্যানইউতে পাড়ি জমান ফ্যালকাও। শর্ত অনুযায়ী ভাল পারফর্মেন্স করতে পারলে তার সঙ্গে রেড ডেভিলসদের স্থায়ী চুক্তি করার সুযোগ ছিল। সেক্ষেত্রে মোনাকোকে আরও ৫০ মিলিয়ন ইউরো দিতে হতো। আর ফ্যালকাওয়ের সাপ্তাহিক বেতন দাঁড়াত তিন লাখ ইউরো। কিন্তু সাবেক কলম্বিয়ান স্ট্রাইকার এবারের মৌসুমে ২৯ ম্যাচে করেছেন মাত্র চার গোল। গত বছরের ৩১ জানুয়ারিতে লিচেস্টার সিটির বিরুদ্ধে সর্বশেষ গোলের দেখা পান। এতেই ম্যানইউর কোচ লুইস ভ্যান গালের আস্থা হারান। ম্যানইউর অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভ্যান গাল বলেন, ফ্যালকাও একজন শীর্ষ পর্যায়ের পেশাদার খেলোয়াড়। সে ভাল মানুষও বটে। ক্লাব ও আমার পক্ষ থেকে তার ভবিষ্যতের জন্য শুভকামনা রইল। অবশ্য বরাবরের মতোই ওল্ডট্রাফোর্ডে থাকার ইচ্ছার কথা জানিয়েছেন ফ্যালকাও। অথচ অনেক নাটকীয়তার পর ফরাসী ক্লাব মোনাকো ছেড়ে ইংলিশ পরাশক্তি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছিলেন ফ্যালকাও। রেড ডেভিলস শিবিরে আসতে পেরে উচ্ছ্বাসও প্রকাশ করেছিলেন সাবেক এ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ তারকা। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে সাক্ষাতকারে ফ্যালকাও বলেন, ‘ম্যানইউতে এসে আমার স্বপ্নপূরণ হয়েছে।’ ম্যানইউতে নাম লেখানোর পর ফ্যালকাও বলেন, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্লাব। নিশ্চিত করেই তারা আবারও শীর্ষে ফিরতে বদ্ধপরিকর। লুইস ভ্যান গালের সঙ্গে কাজ করতে এবং ক্লাবের ইতিহাসে সাড়া জাগানো এ সময়ে দলের সাফল্যে অবদান রাখতে আমি মুখিয়ে আছি। তিনি আরও বলেছিলেন, প্রিমিয়ার লীগে খেলাটা স্বপ্নপূরণের মতো। এটা দারুণ একটা লীগ, দলগুলোও বেশ ভাল। আমি সব সময় এখানে আসতে চেয়েছি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ইংল্যান্ডের সেরা ক্লাব। সবকিছু নিখুঁতভাবেই হয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: