২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

চীনের মুসলমানদের জীবন নিয়ে আলোকচিত্র প্রদর্শনী


স্টাফ রিপোর্টার ॥ চীনে বসবাসরত মুসলমান সম্প্রদায়ের যাপিত জীবনের ছবি নিয়ে জাতীয় জাদুঘরে শুরু হলো আলোকচিত্র প্রদর্শনী। চীনা আলোকচিত্রীদের ধারণকৃত আলোকচিত্রে সাজানো প্রদর্শনীর শিরোনাম ‘চাইনিজ মুসলিম অন দ্য সিল্ক রোড’। যৌথভাবে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘুর, ঢাকায় চীনা দূতাবাস ও বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি।

সোমবার সকালে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন চীনের উপপ্রধানমন্ত্রী লিউ ইয়ানদং ও সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এসময় উপস্থিত ছিলেন চীনের রাষ্ট্রদূত মা মিং চিয়াং ও জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরী।

চীনের মুসলিম সম্প্রদায়ের ধর্মীয় আচারের সঙ্গে কৃষ্টি ও যাপিত জীবনের নানা বিষয় উঠে এসেছে প্রদর্শনীর ছবিতে। তিন দিনের এ প্রদর্শনী শেষ হবে কাল বুধবার। সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার প্রদান ৩০ মে ॥ দেশের অন্যতম সাহিত্য, শিল্প ও সংস্কৃতিবিষয়ক মাসিক পত্রিকা ‘কালি ও কলম’। পত্রিকাটি ২০০৮ সাল থেকে প্রতিবছর দেশের তরুণ কবি ও লেখকদের সাহিত্যচর্চা ও সাধনাকে সঞ্জীবিত করার লক্ষ্যে প্রদান করে আসছে ‘কালি ও কলম তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার’। সেই ধারাবাহিকতায় ২০১৪ সালের জন্য তিনজন তরুণ কবি ও লেখককে এ পুরস্কার প্রদান করবে। পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখকরা হলেন কবিতা বিভাগে সাকিরা পারভীন, প্রবন্ধ, গবেষণা ও নাটক বিভাগে এম আবদুল আলীম এবং ছোটগল্প ও উপন্যাস বিভাগে ফাতিমা রুমি। আগামী ৩০ মে শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ধানম-ির বেঙ্গল শিল্পালয়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনজন কবি ও লেখককে ২০১৪ সালের ‘কালি ও কলম তরুণ কবি ও লেখক পুরস্কার’ প্রদান করা হবে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে পত্রিকাটি এসব তথ্য জানিয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন ভারতের নন্দিত কথাসাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার। এছাড়াও পত্রিকাটির সম্পাদকম-লীর সভাপতি ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে এ আয়োজনে বিশেষ অতিথি থাকবেন কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন।

দেশের নবীন সাহিত্যকর্মীদের মাঝে সাড়া জাগানো প্রতি বিভাগের জন্য এই পুরস্কারের অর্থ মূল্য এক লাখ টাকা। সেই সঙ্গে পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রত্যেকের হাতে উঠবে একটি ক্রেস্ট এবং একটি সম্মাননা পত্র।

৫ জুন শ্রেয়া ঘোষালের কনসার্ট ॥ দীর্ঘ পাঁচ বছর পর আবারও বাংলাদেশে আসছেন ভারতের খ্যাতিমান সঙ্গীতশিল্পী শ্রেয়া ঘোষাল। বে এন্টারটেইনমেন্ট আয়োজিত ‘শ্রেয়া ঘোষাল নাইট’ শিরোনামের একটি কনসার্টে গান গাইবেন তিনি। আগামী ৫ জুন বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারের নবরাত্রি হলে কনসার্টটি অনুষ্ঠিত হবে।

কনসার্ট চলবে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। জমকালো এ অনুষ্ঠানের টিকেট পাওয়া যাবে রাজধানীর সব স্বপ্ন সুপারশপ, আলমাস, নর্থ ওয়েস্ট এভিয়েশন, কাবাব ফ্যক্টরি ও এ্যাবাকাস কনভেনশন সেন্টারের গুলশান, ধানম-ি ও উত্তরা শাখা, মান্যবর, ওয়েলফুড, আপন জুয়েলার্স, দ্য মিরেজ, মিন্ট, স্বপ্ন, আল-বাক, ব্লকবাস্টার, সিনেপ্লেক্স, থার্টি থ্রি, দি ওয়েস্টিন ঢাকা, আই এ্যাম ঢাকা, ই-টিউনস, টিকেট চাই ডটকমসহ বিভিন্ন স্থানে ।

বাংলা একাডেমির সঙ্গে চীনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমঝোতা ॥ সোমবার বিকেলে বাংলা একাডেমির ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ ভবনের সভাকক্ষে বাংলা একাডেমি এবং চীনের বেজিং ফরেন স্টাডিজ ইউনিভার্সিটির মধ্যে শিক্ষার্থী, ফ্যাকাল্টি ও গবেষক, প্রশাসনিক ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বিনিময় এবং গবেষণা ও প্রকাশনা সংশ্লিষ্ট বিষয়ে পাঁচ বছর মেয়াদী দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। একাডেমির পক্ষে সভাপতি ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান এবং বেজিং ফরেন স্টাডিজ ইউনিভার্সিটির সভাপতি পেং লং চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে চীনা প্রতিনিধিবৃন্দ বলেন, বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক বিদ্যমান। চীনে বাংলা সাহিত্য বিশেষ করে রবীন্দ্রসাহিত্য নিয়ে এখন বিস্তারিত গবেষণা হচ্ছে। তারা বলেন, বেজিং ফরেন স্টাডিজ ইউনিভার্সিটি বিশ্বের একটি বিশিষ্ট উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিয়োজিত চীনা রাষ্ট্রদূতগণ এখানে শিক্ষা গ্রহণ করেছেন। বাংলা একাডেমির সঙ্গে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারক দু’দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও দৃঢ় করবে। তারা বাংলা একাডেমির সভাপতিকে এই বিশ্ববিদ্যালয় ভ্রমণের আমন্ত্রণ জানান।

অনুষ্ঠানে বেজিং ফরেন স্টাডিজ ইউনিভার্সিটির সভাপতি পেং লংয়ের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক বিনিময় ও সহযোগিতা বিভাগের পরিচালক মা লিন, চীনা পিপল রেডিওর পক্ষে ইয়াং উইমিং, স্কুল অব এশিয়ান এবং আফ্রিকান স্টাডিজের অধ্যাপক ডং ইউ চেন, স্কুল অব এশিয়ান এবং আফ্রিকান স্টাডিজের ডিন সান ইয়াউমেং, ন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টার অব ওভারসিজ সাইনোলজির পরিচালক জাং জি পিং প্রমুখ। বাংলা একাডেমির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক মোঃ আলতাফ হোসেন, পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল হাই, শাহিদা খাতুন, ড. মোঃ হাসান কবীর, মোবারক হোসেন, ডা. খোন্দকার মুজাহিদুল ইসলাম, ড. জালাল আহমেদ, ড. মোহাম্মদ মিজানুর রহমানসহ একাডেমির বিভিন্ন উপবিভাগের উপপরিচালক এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: