১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মাতলুব আহমাদ এফবিসিসিআই সভাপতি নির্বাচিত


মাতলুব আহমাদ এফবিসিসিআই সভাপতি নির্বাচিত

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দেশের ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন নিটল-নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আবদুল মাতলুব আহমাদ। প্রথম সহসভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি মোঃ শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন। আর সহসভাপতির দায়িত্ব পেয়েছেন চট্টগ্রাম চেম্বারের নেতৃত্বে থাকা মাহাবুবুল আলম। তাঁরা তিনজন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) এই শীর্ষ তিন পদের জন্য কেবল এই তিনজনই মনোনয়ন জমা দেন। তাঁরা তিনজন সংগঠনের পরিচালনা পর্ষদে এসেছেন চেম্বার ও এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে মনোনীত পরিচালক হিসেবে।

সোমবার মতিঝিলের ফেডারেশন ভবনে বিকেল সাড়ে ৪টায় এফবিসিসিআইয়ের নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান সাংসদ অধ্যাপক আলী আশরাফ তাঁদের তিনজনকে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেন। তবে চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়া হবে আগামী ২৮ মে বৃহস্পতিবার।

নির্বাচনী বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সোমবার বিকেল তিনটা পর্যন্ত এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি, প্রথম সহসভাপতি এবং সহসভাপতি পদের ফরম জমা ও কেনার শেষ সময় ছিল। এই সময়ের মধ্যে সভাপতি পদে আবদুল মাতলুব আহমাদ, প্রথম সহসভাপতি পদে মোঃ শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন এবং সহসভাপতি পদে মাহবুবুল আলম ছাড়া আর কেউ ফরম কেনেননি। তাই তাঁরাই আগামী দুই বছরের জন্য ব্যবসায়ী-শিল্পপতিদের শীর্ষ এই সংগঠনটির নেতৃত্ব দেবেন।

এর আগে গত শনিবার এফবিসিসিআইয়ের ২০১৫-১৭ দ্বিবার্ষিক মেয়াদের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে নিটল-নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান মাতলুব আহমাদের নেতৃত্বাধীন উন্নয়ন পরিষদ।

৩২টি পরিচালক পদের জন্য লড়ে উন্নয়ন পরিষদ থেকে ২৫ জন পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন। চেম্বার গ্রুপ থেকে ১২ জন ও এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে ১৩ জন নির্বাচিত হয়েছেন এই প্যানেলের। স্বাধীনতা ব্যবসায়ী পরিষদের দলনেতা মনোয়ার হাকিমসহ চারজন এবং ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ থেকে তিনজন পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন। আর ইতোপূর্বে এ্যাসোসিয়েশন এবং চেম্বার গ্রুপ থেকে ১০ জন করে ২০ জন মনোনীত পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন। নবনির্বাচিত এই ৫২ পরিচালক সোমবার এফবিসিসিআই ভবনে বোর্ড সভায় মিলিত হন। এরপর নেতৃত্ব নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হলে তিন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন নির্বাচন কমিশনার অধ্যাপক আলী আশরাফের কাছে। আর কোন প্রার্থী না থাকায় আলী আশরাফ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তিন প্রার্থীকে বিজয়ী ঘোষণা করেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আর কোন প্রার্থী না থাকায় তিনজনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হলো।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: