১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

আইপিএল চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগ (আইপিএল) হয়ে উঠেছিল দুবার শিরোপাজয়ী ও তিনবার রানার্সআপ হওয়া চেন্নাই সুপার কিংসময়। গত আসরেও শেষ চার থেকে বিদায় নিয়েছিল মুম্বাই। এবারও গ্রুপপর্ব থেকেই ছিটকে যাওয়ার শঙ্কা তৈরি হয়েছিল। কিন্তু শেষ ১০টি ম্যাচের নয়টিতেই জিতে আইপিএল অষ্টম আসরের চ্যাম্পিয়ন হয়ে গেল শচীন টেন্ডুলকরের দল মুম্বাই। অদম্য চেন্নাইকে রবিবার রাতে কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে অনুষ্ঠিত ফাইনালে ৪১ রানে হারিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করল তারা। ২০১৩ সালে প্রথমবার শিরোপা জিতেছিল মুম্বাই।

এবার আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে গত আসরের চ্যাম্পিয়ন কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিরুদ্ধে ইডেন গার্ডেন্সে ৭ উইকেটের বিশাল পরাজয় দিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল মুম্বাই। ফাইনালে আবার ভেন্যু সেই ইডেন গার্ডেন্স। টস জিতে চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েই করলেন চরম ভুলটা। কলকাতার দর্শকরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমর্থন দিয়েছে মুম্বাইকে। প্রথম ওভারেই পার্থিব প্যাটেল রানআউট হয়ে ফিরে যান। কিন্তু এর পর লেন্ডল সিমন্স ও রোহিত শর্মার বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে ওঠে। সিমন্স ৪৫ বলে ৮ চার ও ৩ ছক্কায় ৬৮ এবং রোহিত ২৬ বলে ৬ চার ও ২ ছক্কায় ৫০ রান করেন। পরে কাইরন পোলার্ডের ১৮ বলে ২ চার ও ৩ ছক্কায় ৩৬ এবং আম্বতি রাইডুর ২৪ বলে ৩ ছক্কায় অপরাজিত ৩৬ রান করেন। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ২০২ রানের বিশাল সংগ্রহ পায় মুম্বাই। ৩৬ রানে দুটি উইকেট নেন ডোয়াইন ব্রাভো।

জবাব দিতে নামা চেন্নাইকে শুরু থেকেই চাপে ফেলে মুম্বাই বোলাররা। পাওয়ার প্লে’র ৬ ওভারে মুম্বাই ১ উইকেটে তুলেছিল ৬১। কিন্তু মুম্বাই বোলারদের আঁটসাঁট বোলিংয়ে প্রথম ৬ ওভারে ১ উইকেটে মাত্র ৩১ রান তোলে চেন্নাই। একাই সংগ্রাম করছিলেন ওপেনার ডোয়াইন স্মিথ। কিন্তু শুরুর চাপটা আর কাটিয়ে উঠতে না পেরে পরের দিকে দ্রুত উইকেট খোয়াতে থাকে তারা। স্মিথ ৪৮ বলে ৯ চার ও ১ ছক্কায় সর্বোচ্চ ৫৭ রান করে ফিরে যান। সুরেশ রায়না করেন ১৯ বলে ৩ চার ও ১ ছক্কায় ২৮। শেষদিকে মোহিত শর্মার ৭ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় অপরাজিত ২১ রানের টর্নেডো ইনিংস ছিল অকার্যকর। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৬১ রানেই শেষ হয় চেন্নাইয়ের ইনিংস। মিচেল ম্যাক্লেনাঘান ২৫ রানে তিনটি এবং লাসিথ মালিঙ্গা ও হরভজন সিং দুটি করে উইকেট নেন।