২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

সৌরভ আসছেন বস হয়ে!


সৌরভ আসছেন বস হয়ে!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ভারতের কোচ হিসেবে অনেক দিন ধরেই শোনা যচ্ছিল সৌরভ গাঙ্গুলীর নাম। ক্রিকেটের ‘মোড়ল’ দেশটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় কাজে লাগাতে চাইছে আরও দুই সাবেক গ্রেট শচীন টেন্ডুলকর ও রাহুল দ্রাবিড়কে। কোচ না ডিরেক্টরÑ এ নিয়ে প্রশ্ন থাকলেও একটা বিষয় পরিষ্কার, কলকাতার ‘দাদা বাবু’র প্রত্যাবর্তনটা হচ্ছে ‘বস্’ হয়ে-ই! রবিবার ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে বর্তমান বোর্ড (বিসিসিআই) কর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে এমন খবর প্রকাশিত হয়েছে। আসন্ন বাংলাদেশ সফরেই মহেন্দ্র সিং ধোনি- বিরাট কোহলিরা ‘অভিবাবক’ হিসেবে সৌরভকে পাচ্ছেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া, দ্য হিন্দু, জি নিউজ ব্যুরো, ইন্ডিয়া অনলাইনসহ স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলোতে একযোগে যে খবর প্রকাশ পেয়েছে তাতে ভারতীয় দলের সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী হচ্ছেন ৪২ বছর বয়সী সৌরভ। আদলতের নিষেধাজ্ঞায় বিসিসিআইয়ে নিষিদ্ধ হন আইসিসি প্রধান এন শ্রীনিবাসন। তার স্থলাভিষিক্ত হন জাগমোহন ডালমিয়া। ভারতীয় ক্রিকেটের কেন্দ্রীয় ক্ষমতায় ঘটে ব্যাপক পালাবদল। বর্তমান ‘ডিরেক্টর’ রবি শাস্ত্রীকে দেয়া হয় সব দায়িত্ব, যিনি মূলত শ্রীনির অনুসারী বলে ধারণা। এবার তাই সৌরভকে সর্বময় ক্ষমতা দিয়ে নতুন কমিটি করতে যাচ্ছেন ডালমিয়া। কমিটি যার অধীনেই থাক তাতে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন শচীন ও রাহুল।

দু’জনই বর্তমানে আইপিএলে নিজ নিজ দল নিয়ে ব্যস্ত। শচীন মুম্বাইয়ে আর রাহুল কাজ করছেন রাজস্থান রয়্যালসের ‘মেন্টর’ হিসেবে। দু’জনেই আইপিএল শেষে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাতে চেয়েছেন। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবর সত্যি হলে ভারতীয় ক্রিকেটে আরও একটি দারুণ অধ্যায় শুরু করতে যাচ্ছেন সৌরভ। সেটি আবার তার প্রিয় বাংলাদেশ সফর দিয়ে। মজার বিষয়, ২০০০ সালে তার টেস্টে অধিনায়ক জীবনের শুরুটাও হয়েছিল এই বাংলাদেশ থেকে! সফরের জন্য চূড়ান্ত দল ঘোষণা করেছেন ভারতীয় নির্বাচকরা। আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে বাংলাদেশে আসছেন ধোনি-কোহলিরা। সুতরাং হাতে সময় খুব কম।

আজ-কাল দু’দিনের মধ্যে নতুন কমিটি চূড়ান্ত করতে পারে বিসিসিআই। সেখানে সর্বময় ক্ষমতা সৌরভের হাতে ওঠাটা নাকি সময়ের বিষয়! খবরে এমনটা বেশ জোর দিয়েই জানানো হয়েছে। পদটা হতে পারে জাতীয় দলের প্রধান কোচ, কিংবা ক্রিকেট পরিচালকের (ডিরেক্টর)। পদ যাই হোক, সৌরভের হাতে সব ক্ষমতা ন্যস্ত করতে যাচ্ছেন ডালমিয়া! ‘ডিরেক্টর’ করা হলে সেক্ষেত্রে শাস্ত্রীকে সরিয়ে দেয়া হবে তার চেয়ার থেকে। ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের পর আর চাকরির মেয়াদ বাড়াননি ততকালীন কোচ গ্যারি কার্স্টেন। তার স্থলাভিষিক্ত হন ডানকান ফ্লেচার। কিন্তু সময়টা মোটেই ভাল কাটেনি, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া সফরে চরম ভরাডুবি হয় মোড়লদের।

ফ্লেচারের মাথার ওপর ‘ডিরেক্টর’ করে বসিয়ে দেয়া হয় শাস্ত্রীকে। বিশ্বকাপের সেমিতে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে বিদায় নিতে হয় ধোনিদের। তার চেয়ে বড়, দুর্নীতির দায়ে আদালতের রায়ে বিসিসিআই প্রধানের পদ থেকে বরখাস্ত হন শ্রীনিবাসন। ডালমিয়া শীর্ষ পদে ফিরে আসায় ভারতীয় ক্রিকেটের সব জায়গায়ই আসতে থাকে ব্যাপক পরিবর্তন। সৌরভ যে ডালমিয়ার খুব কাছের লোক তাও নয়, যোগ্যতা, অভিজ্ঞতার আলোকে বিসিসিআই পরিচালকদের বেশিরভাগেরই এখন পছন্দ ‘বাংলার আইডল’ সৌরভ গাঙ্গুলী। কয়েকদিন আগে সৌরভ নিজেই বলেছিলেন, বোর্ডের দায়িত্ব নিতে আগ্রহীন তিনি। তবে ২০১৯ বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে সেটি হতে হবে দীর্ঘমেয়াদে। যাতে মনের মতো করে বিশ্বকাপ উপযোগী একটি দল তৈরি করতে পারেন।

দীর্ঘ না স্বল্প? এ নিয়ে বিতর্ক থাকলেও, সৌরভ যে ভারতীয় ক্রিকেটের ক্ষমতাধর ব্যক্তি হতে যাচ্ছেন, তা নিয়ে সংশয় নেই। সংবাদে তেমনটাই জানানো হয়েছে। সবকিছু চূড়ান্ত অতি সত্বর বিসিসিআই সেক্রেটারি অনুরাগ ঠাকুরসহ শীর্ষ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন ডালমিয়া। ক্রিকেটকে ঢেলে সাজাতে বিসিসিআইর বেশিরভাগ কর্তাই এখন ‘ডিরেক্টর’ হিসেবে নতুন মুখ (ফ্রেশ ফেস) চাইছেন। ‘শ্রীনির লোক’ হিসেবে পরিচিত শাস্ত্রীর হাত থেকে ক্ষমতা নিয়ে নেয়া হলেও তাকে বোর্ডের অন্য কোন পদের জন্য বিবেচনা করা হতে পারে। স্বল্প সময়ের কাজের মূল্যায়ন করেই তাকে বোর্ডে রেখে দিতে চাইছেন বিচক্ষণ ডালমিয়া। কদিন আগে সৌরভ জানান ‘আগেও বলেছি, ভারতীয় ক্রিকেটের সেবা করার প্রবল ইচ্ছে আমার। সুযোগটা যদি সত্যি সামনে আসে, তবে ইতিবাচকভাবেই দেখব।’ সেটি এখন বাস্তবে রূপ নেয়ার পথে।

১৯৯৬ থেকে ২০০৮ পর্যন্ত জাতীয় দলের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি। অধিনাযক হিসেবে ভারতীয় ক্রিকেটে আক্রমণাত্মক মেজাজের জন্ম দেন দারুণ জনপ্রিয় সাবেক এই তারকা।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: