২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

পরিবহন ধর্মঘটে নাকাল খুলনার যাত্রীরা ॥ চাপ বেড়েছে ট্রেনে


জনকণ্ঠ ডেস্ক ॥ তিন দফা দাবিতে ষষ্ঠ দিনের মতো খুলনা থেকে যশোর-আরিচা-ঢাকা রুটে দূরপাল্লার সব ধরনের বাস ধর্মঘট অব্যাহত রয়েছে। খুলনা বিভাগের বিভিন্ন জেলার আন্তঃজেলা রুটেও বাস-মিনিবাস চলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীরা চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। বাস বন্ধ থাকায় ট্রেনের ওপর অস্বাভাবিক চাপ পড়েছে। সিট না থাকায় স্ট্যান্ডিং টিকেট নিয়ে অনেকে ট্রেনে অবর্ণনীয় কষ্ট করে গন্তব্যে যাচ্ছেন। যাত্রীর চাপ বেড়ে যাওয়ায় ঢাকা ও রাজশাহী থেকে খুলনা রুটে চলাচলকারী চার ট্রেনে অতিরিক্ত বগি সংযোজন করা হয়েছে। খুলনা থেকে রবিবার রাতে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া সুন্দরবন আন্তঃনগর এক্সপ্রেস ট্রেনে অতিরিক্ত একটি চেয়ার কোচ যুক্ত করা হয়েছে। আবার অনেকেই বিকল্প মাধ্যম হিসেবে থ্রি হুইলার মাহেন্দ্র, অতুলসহ বিভিন্ন যানবাহনে চড়ে গন্তব্যে যাচ্ছেন। এ জন্য গুনতে হচ্ছে নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি অর্থ। ঝিনাইদহে টানা ধর্মঘটে যাত্রীরা পড়েছেন চরম দুর্ভোগে। খবর স্টাফ রিপোর্টার ও নিজস্ব সংবাদদাতাদের।

খুলনা থেকে দূরপাল্লার সব রুটে বাস চলাচল বন্ধ থাকায় এবং অভ্যন্তরীণ রুটে বাস কম থাকায় যাত্রীরা সীমাহীন ভোগান্তিতে পড়েছেন। অভ্যন্তরীণ রুটে বাস কম চলায় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা মারাত্মক সমস্যায় পড়েছেন। অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে ট্রাক বা মিনি ট্রাকে করে পণ্য আমদানি করতে হচ্ছে। অনির্দিষ্টকালের এ পরিবহন ধর্মঘটের কারণে ট্রেনই এখন দূরের যাত্রীদের একমাত্র ভরসা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সিট না পেলেও দাঁড়িয়েই গন্তব্যস্থলের দিকে রওনা দিচ্ছেন অনেকেই। অনেকেই দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়েও টিকেট না পেয়ে হতাশ হয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন।

রেলওয়ে খুলনার এক কর্মকর্তা জানান, খুলনা থেকে ট্রেনে ঢাকাগামী যাত্রীর চাপ স্বাভাবিক সময়ে বেশি থাকে। বাস বন্ধ থাকায় কয়েকদিন ধরে খুলনা স্টেশনে টিকেট প্রত্যাশীদের চাপ অস্বাভাবিক বেড়ে গেছে। যাত্রীদের কথা বিবেচনা করে কর্তৃপক্ষ রবিবার রাতে ঢাকাগামী সুন্দরবন আন্তঃনগর এক্সপ্রেসে অতিরিক্ত একটি চেয়ার কোচ যুক্ত করেছেন। বাস ধর্মঘট প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত সুন্দরবনে অতিরিক্ত একটি করে কোচ যুক্ত থাকবে বলে তিনি জানান।

ঝিনাইদহে যাত্রী দুর্ভোগ ॥ নিজস্ব সংবাদদাতা জানান, টানা বাস ধর্মঘটে ঝিনাইদহ জেলায় যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। রবিবার জেলার কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন বাসস্ট্যান্ডে যাত্রীদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। শিশু ও নারীদের কষ্ট সবচেয়ে বেশি হয়েছে। অনেকেই বাস না পেয়ে ভ্যানযোগে স্বল্প দূরত্বে যাতায়াত করছেন। আবার কেউ নসিমন, করিমন ও টেম্পোযোগে চলছে। সুযোগ বুঝে এসব যানের যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে।

রাজশাহী বিভাগে আজকের পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত ঘোষণা ॥ রাজশাহী বিভাগে সোমবারের পরিবহন ধর্মঘট স্থগিত করা হয়েছে। সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারশন রাজশাহী বিভাগীয় আঞ্চলিক কমিটির ডাকে আজ সকাল ৬টা থেকে এই ধর্মঘট শুরুর কথা ছিল। মহাসড়কে নিরাপত্তহীনতার কথা উল্লেখ করে শনিবার সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন আঞ্চলিক কমিটি বগুড়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সোমবার থেকে পরিবহন ধর্মঘটের ঘোষণা দিয়েছিল। সড়ক পরিকহন শ্রমিক ফেডারশন বিভাগীয় কমিটির সহসভাপতি কামরুল মোর্শেদ আপেল জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আজ সোমবার বিকেলে শ্রমিক ফেডারশনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এর প্রেক্ষিতে ধর্মঘট স্থগিত করা হয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: