২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

এফবিসিসিআই নির্বাচনে উন্নয়ন পরিষদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) নির্বাচনে নিটল-টাটা গ্রুপের চেয়ারম্যান মাতলুব আহমাদের নেতৃত্বাধীন ব্যবসায়ী উন্নয়ন পরিষদ প্যানেল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছে। চেম্বার ও এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ মিলে ৩২টি পরিচালক পদের বিপরীতে এই প্যানেল পেয়েছে ২৫টি পদ।

এর মধ্যে চেম্বার গ্রুপের ১৬টি পরিচালক পদের মধ্যে উন্নয়ন পরিষদের ১২ জন নির্বাচিত হয়েছেন। অন্যদিকে এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপের ১৬টি পদের বিপরীতে এই প্যানেল পেয়েছে ১৩টি পদ। সব মিলিয়ে এই প্যানেল ২৫টি পরিচালক পদে বিজয়ী হয়ে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠনের সভাপতি পদ মোটামুটি নিশ্চিত করেছেন।

অপরদিকে মনোয়ারা হাকিম আলীর নেতৃত্বাধীন স্বাধীনতা ব্যবসায়ী পরিষদ ৪টি পরিচালক পদে জয়লাভ করেছে। এছাড়া সাফকাত হায়দার চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন ঐক্য পরিষদ পেয়েছে ৩টি পরিচালক পদ।

এই ৩২ নির্বাচিত পরিচালকের বাইরে দেশের প্রভাবশালী চেম্বার ও এ্যাসোসিয়েশন থেকে আরও ২০ জন পরিচালক মনোনীত হয়েছে। সবমিলিয়ে ৫২ জন পরিচালক নির্বাচনের প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। এখন এই ৫২ জন পরিচালক মিলে একজন সভাপতি, একজন প্রথম সহসভাপতি এবং একজন দ্বিতীয় সহসভাপতি নির্বাচন করবেন। নতুন এই ৫২ সদস্যের পরিচালনা পর্ষদ ২০১৫-১৭ সাল সময়ে এফবিসিসিআইয়ে ব্যবসায়ীদের নেতৃত্ব দেবেন।

আজ সোমবার সভাপতি, প্রথম সহসভাপতি ও দ্বিতীয় সহসভাপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নিয়ম অনুযায়ী এবার সভাপতি এবং দ্বিতীয় সহসভাপতি নির্বাচিত হবেন চেম্বার গ্রুপ থেকে। আর প্রথম সহসভাপতি নির্বাচিত হবেন এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে।

এফবিসিসিআই নির্বাচন পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান এম আলী আশরাফ এমপি রবিবার সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে ঘটনাবহুল নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেন। কারণ শনিবার রাত সোয়া ১১টার দিকে চেম্বার গ্রুপের ফল গণনা শেষ হয় এবং রবিবার সকাল পৌনে ৮টার দিকে এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপের ফল গণনা শেষ হয়। গণনা শেষে নির্বাচন কমিশন ফল ঘোষণা করেন।

নির্বাচনে চেম্বার গ্রুপ থেকে উন্নয়ন পরিষদের নির্বাচিত প্রার্থীরা হলেনÑ আমিনুল হক শামিম, দিলীপ কুমার আগারওয়াল, গাজী গোলাম আশরিয়া, শেখ ফজলে ফাহিম, নিজাম উদ্দিন, প্রবীর কুমার সাহা, নুরুল হুদা মুকুট, হাসিনা নেওয়াজ, নাগিবুল ইসলাম দিপু, বজিউর রহমান, মোহাম্মদ আনওয়ার সাদাত সরকার ও রেজাউল করিম রেজনু।

চেম্বার গ্রুপ থেকে স্বাধীনতা পরিষদে বিজয়ী প্রার্থীরা হলেনÑ মনোয়ারা হাকিম আলী, মাসুদ পারভেজ খান (ইমরান), তবারকুল তোসাদ্দেক হোসেন খান টিটো, কোহিনুর ইসলাম, মোঃ মাসুদ।

এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে উন্নয়ন পরিষদ প্যানেলের নির্বাচিতরা হলেন, হেলাল উদ্দিন, নিজাম উদ্দিন রাজেশ, হারুন-অর রশিদ, শামীম আহসান, আবু মোতালেব, হাবিবুল্লাহ দেওয়ান, কে এম আখতারুজ্জামান, এম শয়েব চৌধুরী, মুন্তাকিব আশরাফ, এম এম জাহাঙ্গীর হোসেন, আবু নাসের, আমিন হোলালী ও শফিকুল ইসলাম ভরসা।

এছাড়া এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদ প্যানেল থেকে নির্বাচিত তিন প্রার্থী হলেন- আবুল আয়েস খান, খন্দকার রুহুল আমিন ও শাফকাত হায়দার চৌধুরী।

এর আগে শনিবার সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। চেম্বার গ্রুপের ৪৩৬ ভোটারের মধ্যে ৪১৮ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এছাড়া এ্যাসোসিয়েশন গ্রুপের ১৭৬৬ ভোটারের মধ্যে ১৫৩২ জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন।