১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

গণকবরে অভিবাসীদের মৃতদেহ: মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী


অনলাইন ডেস্ক॥ মালয়েশিয়াযর থাই-সীমান্ত সংলগ্ন একটি জায়গায় রবিবার গণকবরের সন্ধান পাওয়ার পর দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, এগুলোতে মানব পাচারের শিকার হওয়া অভিবাসীদের মৃতদেহ রয়েছে বলেই তার ধারণা।

মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষ বলছে, ওই এলাকায় মানব পাচারকারীদের ব্যবহৃত একটি পরিত্যক্ত শিবির এবং তার কাছাকাছি বেশ কিছু গণকবর পাওয়া গেছে - যাতে অন্তত শ′খানেক মৃতদেহ থাকতে পারে।

এর কিছুদিন আগে এই সীমান্ত এলাকাতেই থাইল্যান্ডের ভূখন্ডের ভেতরে একই রকম পরিত্যক্ত শিবির এবং গণকবরের সন্ধান পাওয়া যায়। তবে মালয়েশিয়ার ভেতরে এই প্রথম গণকবর পাওয়া গেল।

মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমদ জাহিদ হামিদি বলেন. তারা এই গণকবরের সন্ধান পেয়ে স্তম্ভিত হয়েছেন। বিবিসিকে হামিদি বলেন, থাই-মালয়েশিয়া সীমান্তে মোট ১৪টি বড় আকারের শিবির এবং তিনটি ছোট শিবিরের সন্ধান পাওয়া গেছে। এগুলো অন্তত পাঁচ বছর ধরে চালু ছিল বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, পুলিশের বিশেষ বাহিনী এবং সিভিল ডিফেন্স ফোর্স ওই গণকবরগুলোর সন্ধান পায়, যা এখন পুলিশের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা যাচাই করার চেষ্টা করছেন।

বিবিসির সংবাদদাতা মাইকেল ব্রিস্টো জানিয়েছেন, এসব মৃতদেহ মিয়ানমার ও বাংলাদেশ থেকে অবৈধ পথে অভিবাসী হওয়া লোকদের বলেই মনে করা হচ্ছে।

গত বেশ কিছুদিন ধরে থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়ার উপকুলে কয়েক হাজার অভিবাসী বহনকারী নৌকা ভাসছে ।

ওই দেশগুলোর কর্তৃপক্ষ এদের তীরে নামতে না দেয়ায় ওই নৌকাগুলোর আরোহীরা খাবার ও পানির তীব্র অভাবের মধ্যে দিন কাটাতে হয়।

তবে এই মানবিক সংকট নিয়ে বিশ্বব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি হবার পর গত সপ্তাহে মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়া এই অভিবাসীদের সাময়িকভাবে আশ্রয় দিতে রাজি হয়।