২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নিউ ইয়র্কে বাংলা উৎসব


অনলাইন ডেস্ক ॥ বরাবরের মতো এবারও নিউ ইয়র্কে শুরু হয়েছে বাংলা উৎসব ও বইমেলা।

এবার উৎসব উদ্বোধনে মুক্তমনা ব্লগার হত্যাকারীদের কঠোর শাস্তির পক্ষে দেশ ও প্রবাসে জনমত গঠন এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী যে কোনো ষড়যন্ত্র রুখে দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

বাংলা উৎসব উপলক্ষে শুক্রবার জ্যাকসন হাইটসের ডাইভার্সিটি প্লাজা থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়, যাতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা অংশ নেন। বাঙালি পাড়া ঘরে পিএস-৬৯ এ গিয়ে শেষ হয় শোভাযাত্রা, সেখানেই বই মেলা হচ্ছে।

উৎসব উদ্বোধন করেন বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ। এসময় বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের বিশিষ্ট ২৪ ব্যক্তি মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করেন।

উদ্বোধনী পর্বের পর একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে রণাঙ্গনের সঙ্গী যুক্তরাষ্ট্রের চলচ্চিত্রকার লেয়ার লেভিনকে বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়। তাকে উত্তরীয় পরিয়ে দেন নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল শামীম আহসান।

লেয়ার লেভিন এ সময় অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ এবং প্রয়াত চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদের কথা স্মরণ করেন। তার ধারণ করা চিত্র নিয়েই ‘মুক্তির গান’ নির্মাণ করেছিলেন তারেক।

নিউ ইয়র্কে মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বইমেলার ২৪ বছর পূর্তি হল এবার। এবারের বইমেলায় বাংলাদেশ থেকে ১৬টি প্রকাশনা সংস্থা ছাড়াও কলকাতার প্রকাশকদের কয়েকটি স্টলও রয়েছে।

মেলার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অতিথি থাকছেন আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ, রামেন্দু মজুমদার, রিরূপাক্ষ পাল, অনুপম সেন, গোলাম মোর্তজা, লুৎফর রহমান রিটন, নাজমুন নেসা পিয়ারি, রামকুমার মুখোপাধ্যায়, সৈয়দ আব্দুল হাদী, দিলারা হাশেম, মিজানুর রহমান জোয়াদ্দার, শারমিন আহমেদ, রোকেয়া হায়দার, জামালউদ্দিন হোসেন, হাসান ফেরদৌস, আহমেদ মুসা, সামিনা চৌধুরী, নববিক্রম ত্রিপুরা, ড. নূরন্নবী প্রমুখ।

উৎসব কমিটির আহ্বায়ক রোকেয়া হায়দার বলেন, “বাঙালিরা উৎসব-আনন্দে তার স্বকীয়তার প্রকাশ ঘটায়। নিউ ইয়র্কে গত ২৪ বছর যাবত সে প্রয়াসই চালাচ্ছে মুক্তধারা।”

এ উৎসবে কবিতা পাঠের আসর ছাড়াও সমসাময়িক পরিস্থিতির আলোকে বেশ কটি আলোচনা অনুষ্ঠান হবে। উৎসবে তরুণ প্রজন্মের অংশগ্রহণেও রয়েছে কয়েকটি পর্ব।

বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতি বিকাশে নিউ ইয়র্কের এই বইমেলার গুরুত্বের জন্য নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্যের গভর্নর এন্ড্রু ক্যুমো ২২ মে থেকে ২৪ মে পর্যন্ত ‘আন্তর্জাতিক বাংলা উৎসব ডে’ ঘোষণা করেছেন।