২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলি


বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলি

মোরসালিন মিজান ॥ গরম বাড়ছে। বাড়ছেই। গ্রীষ্মের গরমে এরই মাঝে অতিষ্ঠ রাজধানীবাসী। দিনের বেলায় সূর্য যেন নিচে নেমে আসে। খুব কাছ থেকে তাপ বিকিরণ করে। সপ্তাহজুড়ে ছিল এই অবস্থা। বৃহস্পতিবারের কথাই ধরা যাক, সে কী রোদ! সারাদিন লুহাওয়া। ত্বক জ্বালা করছিল। অতিরিক্ত ঘামে মুহূর্তেই ক্লান্ত হয়ে যাচ্ছিল শরীর। গরম থেকে বাঁচতে পার্ক ও উদ্যানের গাছের নিচে বিশ্রাম নিতে দেখা যায় সাধারণ মানুষকে। পশু পাখিও যেন রোদে বের হওয়ার সাহস পাচ্ছিল না। এদিন মধ্য দুপুরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছের নিচে বসে বিশ্রাম নিতে দেখা যায় অনেককে। ক্লান্ত এসব মানুষের পাশে চোখ বন্ধ করে শুয়েছিল কয়েকটি কুকুর। দেখে বোঝা যায়, গরমে এরাও ক্লান্ত। এদিন ঢাকার তাপমাত্রা ছিল ৩৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে মজার ব্যাপার হচ্ছে, আবহাওয়া অফিস এই গরমকে খুব বেশি পাত্তা দিতে রাজি নয়। মে মাসে এই তাপমাত্রা স্বাভাবিক বলেই মত দেন সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা। বলেন, মৃদু ধরনের তাপপ্রবাহ আরও অনেকদিন চলমান থাকবে। বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকলে শরীরের ঘাম সহজে শুকোয় না জানিয়ে তিনি বলেন, এ কারণে অস্বস্তি বেশি লাগে। এ অবস্থা থেকে মুক্তির আপাতত কোন লক্ষণ নেই বলেও জানান তিনি। তবে হ্যাঁ, মেঘ বৃষ্টির কথা আলাদা। যখন তখন হতে পারে। বৃহস্পতিবার সারা দিনের গরমাগরম অবস্থার পর তাই দেখা মেলে বৃষ্টির। সন্ধ্যা ৭টার দিকে আকাশ ভেঙে নামা বৃষ্টিতে স্বস্তি ফিরে আসে বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলির শহর ঢাকায়।

গত সপ্তাহে রাজধানীতে শুরু হয়েছে একাধিক চিত্রকর্ম প্রদর্শনী। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালায় এখন চলছে ‘শেষ থেকে শুরু’ শীর্ষক ছাপচিত্র প্রদর্শনী। একাডেমির সহায়তা নিয়ে প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে শূন্য আর্ট স্পেস। শিল্পকলা একাডেমির সমৃদ্ধ সংগ্রহশালা থেকে প্রদর্শনীর জন্য দেয়া হয়েছে বিখ্যাত শিল্পীদের অমূল্য ছাপচিত্র। ব্যক্তিগত সংগ্রহ থেকেও নেয়া হয়েছে। মোট ৯৫টি ছাপচিত্র দিয়ে সাজানো হয়েছে প্রদর্শনী। জানা যায়, সারা দেশের ১৩০ শিল্পীর দুই শতাধিক ছাপচিত্র থেকে এগুলো প্রদর্শনীর জন্য বাছাই করা হয়। পরবর্তীতে বাকি কাজগুলো প্রদর্শিত হওয়ার কথা রয়েছে। প্রদর্শনীর বিশেষ দিকÑ বরেণ্য শিল্পীদের ছাপচিত্র দেখার সুযোগ। এ তালিকায় রয়েছেন মোহাম্মদ কিবরিয়া, কামরুল হাসান, আমিনুল ইসলাম, মুর্তজা বশীর, আবদুর রাজ্জাক, কাইয়ুম চৌধুরী, রশীদ চৌধুরী, রফিকুন নবী, শাহাবুদ্দিন আহমেদ, মনিরুল ইসলাম, মাহমুদুল হক, শহিদ কবীর, আবুল বারক্্ আলভীর মতো শিল্পীরা। প্রদর্শনী চলবে ৩০ মে পর্যন্ত। প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা এবং শুক্রবার বেলা ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে সবার জন্য।

গুলশানের বেঙ্গল আর্ট লাউঞ্জে চলছে শিল্পী ভিনিতা করিমের ২৩তম একক শিল্পকর্ম প্রদর্শনী। শিরোনামÑ রিভার স্টোরিজ। প্রদর্শনীতে ৩৬টি চিত্রকর্ম স্থান পেয়েছে। প্রদর্শনী চলবে ৬ জুন পর্যন্ত।

একই সময় একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে আট দিনব্যাপী নাট্যোৎসব। ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে উৎসবের আয়োজন করেছে নাগরিক নাট্যাঙ্গন। বুধবার উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। তার পর থেকে চলছে প্রদর্শনী। উৎসবের দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার মঞ্চস্থ হয় সময় নাট্যদলের নাটক ‘শেষ সংলাপ’। ভারত ও বাংলাদেশের নাটকের দলের পরিবেশনা চলবে আগামী বৃহস্পতিবার পর্যন্ত।

এবার বইয়ের প্রদর্শনীর কথা। আজিজ সুপার মার্কেটের বিপরীত দিকে গড়ে ওঠা পাঠক সমাবেশ কেন্দ্রে চলছে অ্যাডর্ন পাবলিকেশন্সের বইয়ের বিশেষ প্রদর্শনী। অন্য প্রকাশকদের বই আছে। তবে অ্যাডর্নকে উপস্থাপন করা হচ্ছে ‘পাবলিশার অব দ্য মান্থ’ হিসেবে। প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের সাত শতাধিক বই আকর্ষণীয় ছাড়ে পাঠকদের হাতে তুলে দিতে এই আয়োজন। এ উপলক্ষে থাকছে বিষয়ভিত্তিক আড্ডা। অংশ নিচ্ছেন লেখক পাঠক প্রকাশক। বৃহস্পতিবার ছিল সাহিত্য সমালোচনা। আজ শুক্রবার নাটক ও নাট্যসাহিত্য নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। শনিবার থাকছে ইতিহাস ও ইতিহাস গবেষণা নিয়ে লেখক-পাঠকের আড্ডা। প্রতিদিন বিকেল সাড়ে ৫টায় শুরু হয় আড্ডা। আগ্রহীদের আয়োজনে যোগ দেয়ার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধান নির্বাহী সৈয়দ জাকির হোসাইন।