২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পে-স্কেল ও পুলিশ নিয়োগে বাজেটে বরাদ্দ থাকছে ২৫ হাজার কোটি টাকা


এম শাহজাহান ॥ পে-স্কেল বাস্তবায়নসহ নতুন পুলিশ নিয়োগে আসন্ন বাজেটে ২৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হতে পারে। জনগণের জানমাল রক্ষা ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নে সরকারী ঘোষণা অনুযায়ী আগামী অর্থবছরের মধ্যে ৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগ করা হবে। এজন্য বেতনÑভাতা ও সরঞ্জামাদি কিনতে প্রয়োজন হবে ১০ হাজার কোটি টাকা। সরকারী চাকুরেদের নতুন পে-স্কেল বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে ১৫ হাজার কোটি টাকা অতিরিক্ত বরাদ্দের কথা জানিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। সবমিলিয়ে নতুন বাজেটে আরও ২৫ হাজার কোটি টাকার প্রয়োজন হবে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে এ তথ্য।

জানা গেছে, অষ্টম পে-স্কেল বাস্তবায়ন এবং পুলিশ বাহিনীতে ১০ হাজার নতুন নিয়োগের জন্য বাজেটে অতিরিক্ত বরাদ্দ দিতে সরকারের প্রস্তুতি রয়েছে। এজন্য বাড়তি অর্থের চাহিদা মেটাতে বাজেটে একটু চাপ তৈরি হলেও প্রয়োজনীয় অর্থ সংস্থানের পরিকল্পনা করা হচ্ছে। রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা বাড়ানোসহ বৈদেশিক অনুদান ও ঋণ পাওয়ার চেষ্টা করছে সরকার। এজন্য দাতা সংস্থা ও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল আইএমএফ এবং বিশ্বব্যাংকের সহযোগিতা চাওয়া হবে। প্রশাসনের দক্ষতা বাড়ানো এবং সরকারী চাকুরেতে মেধাবীদের আকর্ষণে অষ্টম পে-স্কেল বাস্তবায়ন শুরু হবে আগামী ১ জুলাই থেকে। এজন্য সরকারের প্রয়োজন হবে ১৫ হাজার কোটি টাকা। নতুন ৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগ করা হলে তাঁদের বেতন-ভাতা ও প্রয়োজনীয় ব্যয় মেটাতে ১০ হাজার কোটি টাকার প্রয়োজন হবে। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আবেদনে প্রেক্ষিতে অর্থ মন্ত্রণায় প্রথম পর্বে ৯ হাজার ৯০৬ ক্যাডার ও নন-ক্যাডার পুলিশ সদস্য নিয়োগের অনুমোদন দিয়েছে। আর এতে শুধু বেতন বাবদ প্রয়োজন হবে ৬০৫ কোটি ৭৮ লাখ টাকা। এছাড়া খাবার গাড়ি ও জ্বালানি খরচ বাবদ অর্থ চাওয়া হয়েছে। এছাড়া দ্বিতীয় পর্বে ৪ হাজার ৭৭১ ক্যাডার ও নন-ক্যাডার সদস্য নিয়োগের অনুমোদন দেয়া হয়, আর এতে খরচ হবে ৫০৫ কোটি ৭৫ লাখ টাকা। এভাবে আগামী বছরের মধ্যে ধাপে ধাপে ৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগ করা হবে।

এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সম্প্রতি জনকণ্ঠকে বলেন, আগামী বাজেটের আকার বড় হচ্ছে। সরকারের প্রয়োজনেই বাজেট বড় করা হচ্ছে। তিনি বলেন, নতুন পে-স্কেল কার্যকর হবে আগামী ১ জুলাই থেকে। এছাড়া জনগণের সেবা বাড়াতে পুলিশসহ সরকারী অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। এজন্য আগামী বাজেটে অতিরিক্ত অর্থের বরাদ্দ রাখবে সরকার। তবে এ কারণে বাজেটে বাড়তি চাপ তৈরি হবে না বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: