১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ক্যাম্পাসে মানিয়ে নিতে...


কো-এডুকেশন

০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে যে ছেলে বা মেয়েটির সঙ্গে আলাপ হলো, সে কিন্তু আপনার প্রেমিক বা প্রেমিকা নয়। তাকেই মনপ্রাণ সঁপে দিলে চোখের জল ফেলতে হবে পরে।

০ কলেজে যে পরিবেশে আপনি ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয় তার চেয়ে আলাদা। বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিধি অনেক বড়। দুটোকে মেলাতে চাইলে মুশকিল। বিশ্ববিদ্যালয়ে আপনাকে অনেক বেশি দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে।

০ আপনি যতটা নমনীয়, প্রয়োজন পড়লে ঠিক ততটাই কঠিন হতে হবে। যে কোন পরিস্থিতি সামলানোর জন্য মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে হবে।

০ জড়তা ঝেড়ে ফেলে বন্ধু-বান্ধবীর সঙ্গে খোলাখুলি কথা বলুন যে কোন বিষয়ে।

০ ছেলেদের ক্ষেত্রে কোন সুপিরিয়রিটি কমপ্লেক্সে ভুগবেন না। মেয়েরা মোটেও আপনাদের চেয়ে কম যোগ্য না।

০ মেয়েদের একটু বাড়তি সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত। অনেক সময় এ্যাডভেঞ্চারার্স হতে গিয়ে বিপদ ডেকে আনে অনেকে। সেই ভুল করবেন না।

র‌্যাগিং

০ র‌্যাগিংয়ের হাত থেকে বাঁচার প্রথম রাস্তা হলো, খুব স্বাভাবিক থাকার চেষ্টা করা। এছাড়া পোশাক, কথা বলার ধরন, স্বাভাবিক থাকতে হবে।

০ নিজের ক্লাসের ছেলেমেয়েদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন। তাহলে সিনিয়ররা আপনাকে কব্জা করতে পারবে না।

০ যদি মনে হয়, আত্মসম্মানে লাগছে তাহলে প্রতিবাদ করাই শ্রেয়। তবে খেয়াল রাখতে হবে, যে সময় র‌্যাগিং করা হয় সে সময় ধারেকাছে এমন কেউ যেন না থাকেন যিনি সুবিধা নিতে পারেন। তাই তখন চেঁচামেচি না করে দলবেঁধে প্রতিবাদ করাই বুদ্ধিমানের কাজ।

গ্রাম থেকে শহরে

বড় শহরের বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যাওয়ার স্বপ্ন দেখে মফস্বলের অনেক শিক্ষার্থী। অভ্যস্ত জীবনধারা বদলে গেলে অনেকেরই এই প্রতিক্রিয়াগুলো হয়-

০ উদ্বেগ, হতাশা ও নৈরাশ্যজনিত মানসিক অবসাদ, রাগ, হীনম্মন্যতা।

০ হৈচৈ ও হট্টগোলপূর্ণ একটু অন্যরকম জীবনযাত্রার চাপ একদিকে, অন্যদিকে রয়েছে প্রবল প্রতিযোগিতার মুখোমুখি দাঁড়িয়ে লড়াইয়ের প্রস্তুতি।

০ পুরনো বন্ধুদের কাউকেই প্রায় সঙ্গী হিসেবে পাওয়া যায় না। সম্পূর্ণ নতুন পরিবেশে বেড়ে ওঠা ছেলেমেয়ের সঙ্গে বন্ধুত্ব করতে হয়। নতুন এই পরিস্থিতি অনেকের অজানা।

০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে সাধারণত সিনিয়রদের উপদেশ অনুযায়ী হাতেখড়ি হয় প্রেম ও পলিটিক্স।

০ টেনশনের আর একটা কারণ ভাষাগত সমস্যা।

০ হঠাৎ পাওয়া স্বাধীনতার অপব্যবহারটাই বেশি হয়।

করণীয়

০ রাজনীতি, নেশা ও অসৎ সঙ্গ থেকে দূরে থাকুন। বন্ধু নির্বাচনের সময় সাবধানী হোন।

০ প্রতিদিন রাতে ঠিক করুন পরের দিন কি কি করবেন। দিনের শেষে দেখুন কতটা পারা গেল।

০ প্রত্যেক বিষয়ে ১০০% নম্বরের দিকে লক্ষ্য রাখুন। কিন্তু সেটা অর্জন করতে না পারলে মুষড়ে পড়বেন না। এতে মনের ওপর বেশি চাপ পড়ে। লাইব্রেরিতে সময় দিন।

০ ইংরেজীর প্রতি বিশেষ নজর দিতে হবে।

০ বাড়ির সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ করুন। প্রয়োজনে শিক্ষকদের সাহায্য নিন।

নূর আলম ভূঁইয়া