১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

স্বাধীনতা প্রশ্নে স্কটিশরা ফের গণভোট চাইবে


ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন স্কটল্যান্ডের স্বাধীনতা প্রশ্নে ভবিষ্যতে দ্বিতীয়বারের মতো গণভোট অনুষ্ঠানে অস্বীকৃতি জানালে, স্কটিশ ন্যাশনাল পার্টি (এসএনপি) তা অনুষ্ঠানের চেষ্টা চালাবে। ওয়েস্ট মিনিস্টারে দলের এক উর্ধতন সূত্রে এ আভাস দেয়া হয়। খবর গার্ডিয়ানের।

দলটির গণভোট অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক ম্যান্ডেট রয়েছে কিন্তু ওয়েস্ট মিনিস্টান তা হতে দিতে চাচ্ছে না বলে মনে করলে দলটি প্রধানমন্ত্রীকে এড়িয়ে গিয়ে স্কটিশ জনগণের এক প্রতীকমূলক ভোট অনুষ্ঠানে চেষ্টা চালাতে প্রস্তুত থাকবে।

ক্যামেরন স্বাধীনতা প্রশ্নে আবার গণভোট অনুষ্ঠানের দাবি মেনে নিতে অস্বীকার করতে পারবেন কিনা, এ বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে এসএনপির সিনিয়র সূত্রে প্রধানমন্ত্রী সেটি করতে পারবেন না বলে দাবি করা হয়।

সাধারণ নির্বাচনের আগে এসএনপি নেতা নিকোলা স্টারজেন বারবার বলেছিলেন যে, পরিস্থিতিতে কোন ‘গুরুত্বপূর্ণ‘ পরিবর্তন না হলে আরেক গণভোট অনুষ্ঠান এজেন্ডার বাইরেই থাকবে। কিন্তু ‘গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন’ বলতে কি বোঝায়, তা স্পষ্ট নয় এবং এসএনপি। আরেকবার গণভোট চাওয়ার ম্যান্ডেট রয়েছে বলে যুক্তি দেখাতে কয়েকটি বিকল্প পথই খুঁজে পেতে পারে। যদি ক্যামেরন স্কটল্যান্ডের হাতে আরও ক্ষমতা দিতে এসএনপির দাবি প্রত্যাখ্যান করেন, যদি যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করে বা মানবাধিকার সম্পর্কিত ইউরোপীয় কনভেনশন থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নেয় বা যদি এসএনপি এর ঘোষণাপত্রে আরেক গণভোটের ইচ্ছা প্রকাশ করে ২০১৬ সালে স্কটিশ পার্লামেন্ট নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জন করে, তা হলে দলটি আরেকবার গণভোট অনুষ্ঠানের ম্যান্ডেট রয়েছে বলে যুক্তি দেখাতে পারবে।

বুধবার স্টারজেন পৃথকভাবে আভাস দেন যে, যদি ক্যামেরন স্কটিশ পার্লামেন্টকে আরও ক্ষমতা দিতে তাঁর আহ্বানে সম্মত না হন, তা হলে স্কটিশ জানান স্বাধীনতা প্রশ্নে আরেকবার গণভোট দাবি করতে পারে।

তিনি আরও বলেন যে, প্রধানমন্ত্রী জনগণের ইচ্ছার বিরুদ্ধে গিয়ে কোন গণভোটের সম্ভাবনা বাতিল করতে পারে না।

এসএনপি সূত্রে বলা হয়, দ্বিতীয় গণভোট অনুষ্ঠিত হবে এবং সেটি যদি আগামীকালও অনুষ্ঠিত হয় তা হলেও এতে নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জিত হবে। অবশ্য গত বছরের গণভোটকে স্বাধীনতার ইস্যুটি এক প্রজন্মের জন্য মীমাংসিত হওয়ার এক উপায় হিসেবে অভিহিত করা হয়েছিল।