১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

পরিবার পরিকল্পনা মা ও শিশুস্বাস্থ্য বিষয়ে প্রচার সপ্তাহ শুরু ১৬ মে


স্টাফ রিপোর্টার ॥ পরিবার পরিকল্পনা কার্যক্রমে এমডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে বাল্যবিবাহ। এটি এখনও একটি বড় সামাজিক সমস্যা হিসেবে বিদ্যমান। ১৮ বছর বয়স হওয়ার পূর্বে মেয়েদের বিয়ে না দেয়ার বিদ্যমান আইন বেশি মাত্রায় লঙ্ঘন করা হয়ে থাকে। ১৮ বছর বয়স হওয়ার আগেই দেশে শতকরা ৬৬ ভাগ মেয়ের বিয়ে হয়। এর এক-তৃতীয়াংশ ১৯ বছর বয়স হওয়ার আগেই গর্ভবতী অথবা মা হয়ে যান। গত দশ বছরে আধুনিক জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির ব্যবহারকারীর হার ৪৭.৩ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ৫৪.১ শতাংশে উন্নীত হলেও স্থায়ী ও দীর্ঘমেয়াদী পদ্ধতিতে তেমন কোন অগ্রগতি পরিলক্ষিত হয়নি। এসব বিষয় বিবেচনায় নিয়ে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশে পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের আইইএম ইউনিট ইউএনএফপি’র আর্থিক সহায়তায় প্রতিবছর দু’বার দেশব্যাপী সেবা ও প্রচার কার্যক্রম সপ্তাহ উদযাপন করে থাকে। এবারের প্রথম পরিবার পরিকল্পনা, মা-শিশুস্বাস্থ্য সেবা ও প্রচার সপ্তাহ-২০১৫ আগামী ১৬ থেকে ২১ মে দেশব্যাপী সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ের সকল সেবা কেন্দ্রে উদযাপনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এবারের সেবা ও প্রচার সপ্তাহের প্রতিপাদ্য নির্বাচিত হয়েছে ‘পরিবার পরিকল্পনার দীর্ঘমেয়াদী বা স্থায়ী পদ্ধতি নিন, থাকুন ভাবনাহীন’।

বৃহস্পতিবার পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের আইইএম সম্মেলনকক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতরের মহাপরিচালক মোঃ নূর হোসেন তালুকদার, পরিচালক (আইইএম) মোঃ জামাল হোসাইন, পরিচালক (এমসিএইচ-সার্ভিসেস) ডাঃ মোহাম্মদ শরীফ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরিবার পরিকল্পনা, মা ও শিশু স্বাস্থ্য বিষয়ক সেবা ও প্রচার সপ্তাহ সফল করার আহ্বান জানিয়ে মহাপরিচালক মোঃ নূর হোসেন তালুকদার বলেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিবার পরিকল্পনা অধিদফতর পরিকল্পিত পরিবার গঠনের লক্ষ্যে পরিবার পরিকল্পনা, মা ও শিশু স্বাস্থ্য, বয়ঃসন্ধিকালীন, প্রজনন স্বাস্থ্য, নিরাপদ মাতৃত্ব, জেন্ডার বিষয়ক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে বিগত ছয় দশক ধরে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। দেশের সকল সক্ষম দম্পতিদের যদি পরিবার পরিকল্পনা, মা-শিশুস্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্য ও সেবা প্রাপ্তির সহজ সুযোগ সৃষ্টি করা যায়, তবে কর্মসূচীতে বিদ্যমান চ্যালেঞ্জসমূহ অনেকাংশেই উত্তরণ করা সম্ভব। দেশব্যাপী এই সেবা ও প্রচার সপ্তাহ উদযাপনের অংশ হিসেবে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে এ্যাডভোকেসি সভার আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে।