মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১২ আশ্বিন ১৪২৪, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

মেডিক্যাল ছাত্রী ফারজানাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসুন

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মেডিক্যালের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ফারজানা আক্তারের (২৪) চিকিৎসায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন। তার দুটি কিডনীই নষ্ট হয়ে গেছে। বর্তমানে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন এ্যন্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট হাসপাতালের অধ্যাপক ডাঃ বদিউজ্জামানের তত্ত্বাবধানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার চিকিৎসায় ইতোমধ্যে ১০ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। ডাক্তার জানিয়েছেন ফারজানার দুটি কিডনী প্রতিস্থাপন করতে আরও প্রায় ৮ লাখ টাকার প্রয়োজন। ফারজানা আক্তার আনোয়ারা মেডিক্যাল কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের মেধাবী ছাত্রী। তার পিতা আব্দুল জব্বার ডাচ-বাংলা ব্যাংকের সিনিয়র কর্মকর্তা। মেয়ের চিকিৎসায় এখন তিনি নিঃস্ব। তাঁর পক্ষে মেয়ের চিকিৎসার বিশাল ব্যয় বহন করাও অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় সমাজের দানশীল ও বিত্তবানদের কাছে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন তিনি। কোন সহৃদয় ব্যক্তি ফারজানা আক্তারের চিকিৎসায় সাহায্য দিতে চাইলে যোগাযোগ করুন ডাচ-বাংলা ব্যাংক, সঞ্চয়ী হিসাব নং ১৬৪১০১৩৯৯০১৬ অথবা মোবাইল যোগাযোগ ও বিকাশ নম্বর ০১৯৩০৩৮৮১১২।

ঘোষণা : দৈনিক জনকণ্ঠ মানুষ মানুষের জন্য বিভাগে খবর প্রকাশের মাধ্যমে সহৃদয় ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ ঘটিয়ে দিয়ে থাকে। সাহায্য সরাসরি সাহায্যপ্রার্থীর ব্যাংক এ্যাকাউন্টে জমা দিতে হবে। অথবা সাহায্যপ্রার্থীর দেয়া মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করতে হবে। দৈনিক জনকণ্ঠ এ বিষয়ে কোন দায়ভার গ্রহণ করবে না।

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৫

১২/০৫/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ:
রোহিঙ্গাদের জন্য সেফ জোনের প্রস্তাব সারা বিশ্ব গ্রহণ করেছে ॥ বিএনপির আপত্তি কেন? || গন্তব্যে পৌঁছেছে পদ্মা সেতুর সুপার স্ট্রাকচারবাহী ভাসমান ক্রেন || শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্থাপনে বড় পরিবর্তন আসছে, আট সদস্যের কমিটি || আগামী বাজেট হবে সাড়ে চার লাখ কোটি টাকার ॥ অর্থমন্ত্রী || বিদ্যুতের দাম ইউনিট প্রতি ৭২ পয়সা বৃদ্ধির সুপারিশ || মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুমে পাঠদান চলছে জোড়াতালি দিয়ে || মংডুতে ৩ গণকবরের সন্ধান ॥ দুদিনে এসেছে আরও ২০ হাজার || বৃষ্টিতে ভিজছে শিশুরা, খাবার জোগাড়ে অনেকে নেমেছে ভিক্ষায় || চট্টগ্রাম বন্দরের বে টার্মিনাল নির্মাণে গতি সঞ্চার || আন্তর্জাতিক মানবপাচার চক্রের খপ্পরে ৫ শ’ তরুণ মেক্সিকো সীমান্তে ||