২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রাজিব হত্যা মামলা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে


অনলাইন রিপোর্টার ॥ ব্লগার রাজিব হায়দার হত্যা মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য ঢাকার চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালত থেকে ঢাকার তিননম্বর দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার বিকেলে ট্রাইব্যুনালের বিচারক সাঈদ আহম্মেদ সাক্ষ্যগ্রহণের নতুন তারিখ ঠিক করে দেবেন বলে এ আদালতের বিশেষ কৌসুঁলি মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান।

এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষ্য শুরুর জন্য রাজিবের বাবা ডা. নাজিমউদ্দিনসহ তিনজন সকালে অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে হাজির হন। পলাতক আসামি রেদোয়ানুল আজাদ রানাছাড়া বাকি আসামিদেরও কাশিমপুর কারাগার থেকে আদালতে নিয়ে আসা হয়। কিন্তু আদালত বদলে যাওয়ায় পুরনো আদালতে আর শুনানি হয়নি।

২০১৩ সালে শাহবাগ আন্দোলন শুরুর দশম দিনে ১৫ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজধানীর পল্লবীতে নিজের বাসার সামনে কুপিয়ে হত্যা করা হয় রাজীবকে। ধর্মীয় উগ্রবাদীরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে পুলিশের তদন্তে উঠে আসে।

গত ১৮ মার্চ আট আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে এ মামলার বিচারপ্রক্রিয়া শুরু করে আদালত।

মামলার প্রধান আসামি রেদোয়ানুল আজাদ রানা ছাড়া সবাই এ মামলায় কারাগারে আছেন।

এরা হলেন- নর্থ-সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক এবং ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশনস বিভাগের বহিষ্কৃত ছাত্র সাদমান ইয়াছির মাহমুদ, ফয়সাল বিন নাঈম দীপ, এহসান রেজা রুম্মান, মাকসুদুল হাসান অনিক, নাঈম ইরাদ ও নাফিজ ইমতিয়াজ এবং আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের প্রধান মুফতি মো. জসীমউদ্দিন রাহমানী।

অভিযোগ গঠনের পর ২১ এপ্রিল সাক্ষ্যগ্রহণের দিন রাখা হলেও আসামি মাকসুদুল হাসান অনিকের আইনজীবীরা অভিযোগ গঠনের আদেশের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে যাওয়ায় সাক্ষ্য পিছিয়ে যায়।