২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

হারের সম্ভাবনা দেখছেন সাকিব!


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ প্রথম ইনিংস শেষে বাংলাদেশ ৩৫৪ রানের বিশাল ব্যবধানে পিছিয়ে ছিল। ফলোঅনে ফেলে আরও কোণঠাসা করার সুযোগ ছিল পাকিস্তানের। কিন্তু সেটা না করে দ্বিতীয় ইনিংসে আবারও ব্যাটিংয়ে নামে পাকরা। বিষয়টি খুব আশ্চর্যের মনে হয়েছে বিশ্বসেরা টেস্ট অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের কাছে। তিনি মনে করেন পাকিস্তান দল ফলোঅন করলে আরও আগেই জিতে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল ছিল তাদের। তবে এ বিষয়ে পাকিস্তানের স্পিন বোলিং কোচ মুশতাক আহমেদের দাবি দ্রুতই টেস্ট ম্যাচ শেষ করতে চায়নি পাকিস্তান দল এবং নিজেদের ব্যাটসম্যানদের আরেকবার পরখের সুযোগটা নিয়েছে। তিনি মনে করেন টেস্ট ক্রিকেট খুব মজার একটি খেলা যেখানে নতুন কোন রেকর্ড হতেই পারে। জেতার দারুণ সম্ভাবনা থাকলেও তাই জিততে হলে খুব ভাল বোলিং, ফিল্ডিং ও ক্যাচ ধরতে হবে। দু’দিন বাকি, বাংলাদেশের আরও প্রয়োজন ৪৮৭ রান। সময় বেশি থাকলেও স্বাভাবিকভাবে এ টেস্টে পরাজয়ই দেখছেন সাকিব। তবে এর আগে ভালকিছু করতে হলে আজ সকালের সেশনটা গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেন তিনি।

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ২০০৩ সালে এন্টিগায় ৪১৮ রান তাড়া করে জিতেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। এখন পর্যন্ত টেস্ট ক্রিকেটে সেটিই সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জেতার রেকর্ড। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জয়ের জন্য বাংলাদেশের লক্ষ্য ৫৫০ রান। ১ উইকেটে ৬৩ রান তোলার কারণে আরও ৪৮৭ রান প্রয়োজন জেতার জন্য। নতুন বিশ্বরেকর্ড গড়তে হবে জিততে হলে। প্রায় অলৌকিক এক কাজ করতে হবে। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘যদি সম্ভাবনার কথা বলি তবে বলতে হয় স্বাভাবিক সম্ভাবনা আমরা এ ম্যাচে হেরে যাচ্ছি। এ রকম কখনও হয়নি টেস্ট ক্রিকেটে। এই রান তাড়া করতে হলে আমাদের দু’দিন ব্যাট করতে হবে। সেটা না পারলে এ রান তাড়া করে জেতা যাবে না। খুলনার মতো উইকেট নয় এখানে। অনেক পরিবর্তন এসেছে উইকেটে। তবে প্রথম ইনিংস থেকে আমরা শিক্ষা নিতে পারি এবং অনুপ্রেরণা নিয়ে ব্যাট করতে পারি।’ তবে ব্যাট করলেই তো হবে না। ম্যাচ বাঁচানোই আসল কথা, সেটা প্রায় অসম্ভব বাংলাদেশের জন্য। এখন ইতিবাচক কিছু করা প্রয়োজন। টস জিতে প্রথম ব্যাটিং না করাটাই এমন চাপ সৃষ্টি করেছে বলেও মনে করছেন অনেকে। এ বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘আমরা ভাগ্যবান যে টস জিতেছি এবং ব্যাটিং করিনি। সে সময় উইকেট আরও কঠিন ছিল। আগে ব্যাট করলে হয়ত আজই (তৃতীয় দিন) ম্যাচ শেষ হয়ে যেত, চারদিনে গড়াত না। আমরা জানতাম আজ (তৃতীয় দিন) সকালটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। প্রথম এক ঘণ্টা কাটিয়ে দিতে পারলে খুব ভাল হতো। একইভাবে আগামীকাল (আজ) সকালের এক ঘণ্টা খুব জরুরী। আমাদের সেটা পার করতে হবে। প্রথম সেশনটা আমরা যদি এক উইকেটে পার করতে পারি তাহলে খুব ভাল কিছু করা সম্ভব হবে। এটা নিশ্চিতভাবে বলতে পারি আমরা কোন লড়াই ছাড়া ম্যাচ হাতছাড়া করব না।’

দলের নৈপুণ্যে দারুণ খুশি স্পিন কোচ মুশতাক। তবে চতুর্থ দিন বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে। সেক্ষেত্রে একটা দিন নষ্ট হয়ে গেলে জেতার সুযোগ নষ্ট হতে পারে। ফলোঅন করার সুযোগ থাকতেও সেটা করেনি পাকরা। এ বিষয়ে মুশতাক বলেন, ‘আবহাওয়া পূর্বাভাস নিয়ে ভেবে আমরা কোন ম্যাচ খেলতে পারি না। সেটা নিয়ে চিন্তিতও নই। দলের সিদ্ধান্ত ছিল সেটা (ফলোঅন করানো) এবং আমাদের সেটা মানতে হবে। এটা টেস্ট ক্রিকেট। তিনদিনেই এটা শেষ করার কোন কারণ দেখি না। খেলার প্রতি সম্মান থাকতে হবে। দু’দিন সময় আছে এবং অনেক বেশি সংগ্রহ আমাদের বাংলাদেশকে এর মধ্যেই অলআউট করার জন্য।’ এ ম্যাচে জয়ের জোর সম্ভাবনা রয়েছে পাকিস্তানের। এ বিষয়ে মুশতাক বলেন, ‘আমাদের ভাল সুযোগ ম্যাচটি জেতার। কিন্তু প্রতিপক্ষের প্রতি আমাদের যথেষ্ট সম্মান আছে। ক্রিকেট খুব মজার খেলা যেখানে নতুন কোন রেকর্ড হতেই পারে। আমরা বাংলাদেশকে দ্রুত অলআউট করার প্রতি মনোযোগী এবং সেজন্য ভাল বল করতে হবে, ভাল কিছু ক্যাচ ধরতে হবে।’

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: