১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন ২৫ ও ২৬ জুলাই


বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার ॥ নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুই বছর পর আগামী ২৫ ও ২৬ জুলাই অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৮তম কেন্দ্রীয় সম্মেলন। শুক্রবার সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তারিখ ঘোষণা করেন সংগঠনের সভাপতি এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ। এর আগে আগামী ১১ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা, ২৮ মে ঢাকা মহানগর উত্তর এবং ৩০ মে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার সম্মেলন হবে।

তিনি জানান, জাতীয় সম্মেলনের নির্বাচন পরিচালনা কমিটি, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি, সাজসজ্জা কমিটি, উপ-কমিটি এবং সাব কমিটিসমূহ পরবর্তীতে ঘোষণা করা হবে। বাকি জেলা শাখাগুলোর অঘোষিত তারিখ অচিরেই জানানো হবে। আগামী ১০ জুলাইয়ের মধ্যে সকল জেলা শাখাকে কাউন্সিলর তালিকা কেন্দ্রীয় দফতরে জমা দিতে হবে। যে সকল জেলা শাখা এখনও পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করেনি তারা আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন করবে।

২০১১ সালের ১০-১১ জুলাই ছাত্রলীগের সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। এ কমিটির দুই বছরের মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আরও দুই বছর পর নতুন কমিটি গঠিত হতে যাচ্ছে। এই চার বছরে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউনিটের নেতা-কর্মীদের বিতর্কিত কর্মকা- এবং নিজেদের মধ্যে সংঘাতে জড়িয়ে সমালোচনায় পড়েন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামসুল কবির রাহাত, মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, শারমিন সুলতানা লিলি, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সাইফুর রহমান সোহাগ, সমাজসেবা সম্পাদক কাজী এনায়েত, ক্রীড়া সম্পাদক আবিদ আল হাসান, ঢাবি সভাপতি মেহেদী হাসান, সাধারণ সম্পাদক ওমর শরীফসহ কেন্দ্র, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মহানগর ও ইউনিটের নেতাকর্মীরা।

লিখিত বক্তব্যে সোহাগ বলেন, আমাদের কমিটির সকল সাফল্য আমাদের সংগঠনের সকল নেতা-কর্মী ও দেশের সাধারণ মানুষের। আর ব্যর্থতাগুলো শুধুই আমাদের। এবারের সম্মেলনের মধ্য দিয়ে পরিশ্রমী, মেধাবী উদ্যমী মুখ্য নেতৃত্বে আসবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি।

সংবাদ সম্মেলন থেকে আরও কয়েকটি জেলা শাখার সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়। এগুলো হচ্ছে আগামী ২৫ মে মুন্সীগঞ্জ, ১ জুন খাগড়াছড়ি, ২ জুন রাঙ্গামাটি, ৩ জুন বান্দরবান, ৪ জুন চট্টগ্রাম উত্তর, ৬ জুন খুলনা, ৭ জুন খুলনা মহানগর, ৮ জুন মাগুরা, ১৩ জুন নোয়াখালী, ১৫ জুন পঞ্চগড়, ১৬ জুন গাইবান্ধা, ১৭ জুন লালমনিরহাট, ২০ জুন মৌলভীবাজার, ২১ জুন সুনামগঞ্জ, ২৫ জুন চাঁদপুর, ৪ জুলাই সিলেট মহানগর শাখা।

সংবাদ সম্মেলন শেষে যুক্তরাজ্যের সাধারণ নির্বাচনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দৌহিত্রী টিউলিপ রেজওয়ান সিদ্দিক, রূপা হক ও রুশনারা আলী নির্বাচিত হওয়ায় তাদের অভিনন্দন জানান। বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত চুক্তি বিল পাস হওয়ায় আনন্দ মিছিল বের করা হয়।

মিছিলটি মধুর ক্যান্টিন থেকে শুরু হয়ে ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থান ঘুরে টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে গিয়ে শেষ হয় এবং সেখানে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন বদিউজ্জামান সোহাগ। এ উপলক্ষে আজ দেশের সকল জেলা-উপজেলা এবং আগামীকাল সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আনন্দ মিছিল করবে। আজ বিকেল চারটায় কাওরান বাজার এবং ১১ মে বঙ্গবন্ধু এ্যাভিনিউতে আনন্দ মিছিল করবে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ শাখা। এছাড়া বুয়েট শিক্ষকের অপসারণ দাবি এবং ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের আজীবন বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার দাবিতে আগামী ১১মে বুয়েট শহীদ মিনারে সংহতি সমাবেশ করবে সংগঠনটির নেতাকর্মীরা।