১৮ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ঝলক


সমুদ্রের তলায় টেনিস কোর্ট!

সমুদ্রের তলায় শহর! কথাটি রূপকথার গল্পেরই মতো। বাস্তবে শহর না হলেও টেনিস কোর্ট তৈরি হচ্ছে সমুদ্রের গভীরে। দুবাইয়ের পাম আইল্যান্ডের ৮৩০ মিটার লম্বা বুর্জ খলিফা সংলগ্ন উপকূলে নির্মাণ হচ্ছে এই টেনিস কোর্ট। তৈরি হয়ে গেলে সেখানে চলবে প্রতিযোগিতামূলক টেনিস টুর্নামেন্ট। একই সঙ্গে থাকবে প্রায় ৩০ হাজার দর্শকের বসার আসন। মাথার ওপর সমুদ্রের মনোরম দৃশ্য, সেই সঙ্গে টেনিসের টানটান উত্তেজনার স্বাদ নিতে সাধারণ মানুষকে অপেক্ষা করতে হবে আরও ৬ মাস।

টেনিস গ্রাউন্ডটি তৈরি করার দায়িত্বে রয়েছেন একজন ইঞ্জিনিয়ার। তার কথায়, ‘প্রথমে কাচের ১০৮ ফুট চওড়া বক্স বানিয়ে জলের মধ্যে ফেলা হবে। তারপর পাম্প লাগিয়ে জল বের করে দেয়া হবে।’ তবে এই বিলাসবহুল টেনিস কোর্টটি তৈরি করতে ঠিক কত টাকা খরচ হবে তা জানা সম্ভব হয়নি।

অবকাশযাপন চাঁদে!

অবকাশযাপনে চাঁদে যেতে চান? এটা বিন্দুমাত্র রসিকতা নয়। সময় লাগবে মাত্র ৪ ঘণ্টা। মার্কিন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসা সম্প্রতি এমন একটি যান তৈরি করেছে, যা ৪ ঘণ্টায় পৌঁছে দেবে চাঁদে। তীব্র গতিসম্পন্ন এই মহাকাশযানটির পোশাকী নাম ‘ওয়্যার্প ড্রাইভ।’ নতুন যানটির পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণেও সাফল্য পেয়েছে নাসা। এই যানে প্রয়োজন হবে না রকেট জ্বালানিরও। গত এক দশক ধরে ‘ওয়্যার্প ড্রাইভ’ ইঞ্জিনের ওপর গবেষণা চালাচ্ছে নাসা। তবে এখনই এই প্রযুক্তি বাণিজ্যিকভাবে চালু করার ইচ্ছে নেই নাসার। আরও কয়েকবার পরীক্ষার পরেই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সেলফি ক্রেজে

দিন দিন বেড়েই চলছে সেলফি ক্রেজ। আর এ ক্রেজ কখনও কখনও ডেকে আনে বিপদ। এমনই ঘটনা ঘটিয়েছে দুই পর্যটক। প্রায় ৩০০ বছরের পুরনো একটি মূর্তির সঙ্গে সেলফি তুলতে গিয়ে, তারা ভেঙ্গেই ফেললেন ইতিহাসের এই সাক্ষীকে। ইতালির ক্রেমোনিয়া শহরে অবস্থান করছে ‘স্ট্যাচু অব দ্য টু হারকিউলিস।’ মূর্তিটিতে দেখা যায়, শহরের প্রতীককে ধরে রেখেছে পৌরাণিক গ্রিক দেবতা হারকিউলিস। প্রতীকের মাথায় ছিল একটি বড় মুকুট। দুই পর্যটকের ইচ্ছে হয়েছিল, মূর্তির সঙ্গে সেলফি তোলার। মূর্তির নাগাল না পেয়ে তারা মূর্তিটিতে চড়ার চেষ্টা করেন। দুজন পূর্ণবয়স্ক মানুষের ভার নিতে পারেনি ১৭০০ শতাব্দীর ‘স্ট্যাচু অব দ্য টু হারকিউলিস।’ হুড়মুড় করে ভেঙ্গে পড়ে মূর্তির মুকুটের একাংশ।

ভেড়ার র‌্যাম্প শো!

ছাপা লাল ফ্রকে সাদা লেসের ঘের, মাথায় ম্যাচিং হেয়ার ব্যান্ড। আদুরে ‘কন্যা’র প্রথম র‌্যাম্পে পা অথবা লেপার্ড প্রিন্টেড লং গাউনের মোহময়ী চাহনিতে মুগ্ধ দর্শক আসন। তার ঠিক পেছনেই স্মার্ট লুকের বো-টাইয়ের আধুনিক ‘পুরুষ’। কিন্তু মডেলরা সকলেই চার পেয়ে! সাদা পশমে নো মেকআপ লুকে র‌্যাম্প ওয়াকে হাজির ভেড়ার দল। সম্প্রতি টোকিওর নারিটা ড্রিম ফার্মে আয়োজিত হয়েছিল অভিনব এই ফ্যাশন শো।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: