২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশে গভীর সমুদ্র বন্দর নির্মাণে ফের চীনের আগ্রহ প্রকাশ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকায় সফররত চীনের বিশেষ দূত চাই জিঙ বলেছেন, বাংলাদেশে উন্নয়নের জন্য রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা প্রয়োজন। আর অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক সমস্যা সমাধানে বাংলাদেশ নিজেই সক্ষম। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিশেষ দূত চাই জিঙ বুধবার সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। এছাড়া বাংলাদেশে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণে পুনরায় আগ্রহ প্রকাশ করেছে চীন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে বৈঠক করেন বিশেষ দূত চাই জিঙ। বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক ছাড়াও আঞ্চলিক উন্নয়ন নিয়ে আলাপ হয়েছে। এ সময় প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, বাংলাদেশের অবকাঠামো উন্নয়নে বিনিয়োগ করতে চায় চীন। বিশেষ করে উৎপাদনশীল খাত এবং মহাসড়ক ও অবকাঠামো উন্নয়নে আগ্রহী দেশটি। এছাড়া অর্থনৈতিক করিডর বাস্তবায়নে সহায়তা করবে চীন। ঢাকা শহরের সৌন্দর্য বর্ধন, ঢাকা-চট্টগ্রামের মধ্যে আরও উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা, বিদ্যুত উৎপাদন, অবকাঠামো নির্মাণে অর্থায়ন, আঞ্চলিক, উপ-আঞ্চলিক সহযোগিতা, মানব পাচার ইত্যাদি বিষয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিশেষ দূত চাই জিঙ সাংবাদিকদের বলেন, উন্নয়নের পূর্বশর্ত রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা। বাংলাদেশের রাজনৈতিক পরিস্থিতি আপনি আমি আমরা সকলেই জানি। বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক সমস্যা থাকলে, তা সমাধানের জন্য এই দেশের জনগণই যথেষ্ট। বাংলাদেশ নিজেই তার সমস্যা সমাধান করতে পারবে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ সম্ভাবনাময় দেশ। চীনের বিনিয়োগকারীরা এখানে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী। বিশেষ করে বাংলাদেশে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণে চীন আগ্রহী। তিনি আরও জানান, বাংলাদেশে চীনের জন্য বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের বিষয়ে দুই দেশ ইতোমধ্যেই ঐকমত্যে পৌঁছেছে। এটি বাস্তবায়ন হলে কর্মসংস্থানসহ বিভিন্ন বিষয়ে দুই পক্ষই উপকৃত হবে। এক প্রশ্নের উত্তরে চাই জিঙ বলেন, বাংলাদেশ সকল খাতেই প্রশংসনীয় উন্নয়ন ঘটিয়েছে, যা চোখে পড়ার মতো। আবার ঢাকা শহরের ট্রাফিক জ্যামও আমার চোখে পড়েছে। কূটনৈতিক সূত্র জানায়, বৈঠকে বাংলাদেশ-চীনের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৪০ বছর পূর্তি বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। এ উপলক্ষে চীনের প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা সফরের সম্ভাবনাও রয়েছে।

উল্লেখ্য, বাংলা ভাষায় পারদর্শী রাষ্ট্রদূত চাই জিঙ বাংলা শিখেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। তিনি তাঁর ক্যারিয়ারের বিভিন্ন সময়ে ঢাকায় অবস্থিত চীনা দূতাবাসে এ্যাটাশে, দ্বিতীয় সচিব, প্রথম সচিব, কাউন্সিলর সবশেষে ২০০৩ সালে বাংলাদেশে চীনের রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত হন। দায়িত্ব শেষে তিনি ২০০৫ সালে ঢাকা ত্যাগ করেন। বাংলাদেশকে তার দ্বিতীয় আবাসভূমি হিসেবে উল্লেখ করে চাই জিঙ বলেন, বাংলাদেশের জন্য তার হৃদয়ে বিশেষ স্থান রয়েছে।