২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

কক্সবাজারে সোয়া কোটি টাকার কর্মসৃজন প্রকল্পে হরিলুট


স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার ॥ জেলার উখিয়ার ৫টি ইউনিয়নে কর্মসৃজন প্রকল্প বাস্তবায়নের নামে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারী লাখ লাখ টাকা লুটপাট করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ পরিচালনা ও তদারকির দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তা, কমিটি প্রধান ও জনপ্রতিনিধিরা যোগসাজশে সরকারী টাকা আত্মসাত করছে বলে জানা গেছে। কতিপয় কর্মকর্তা প্রকল্পস্থলে না গিয়ে অফিসে বসে এসব অনিয়ম ও দুর্নীতির বিষয়টি হিসাব মিলিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। জানা গেছে, গত ১৮এপ্রিল থেকে উখিয়ার ৫টি ইউনিয়নে ১ কোটি ১৭ লাখ ৩৬ হাজার টাকা ব্যয়বরাদ্দে ৩১টি প্রকল্পের কাজ শুরু হয়। প্রকল্প কমিটির সদস্যরা শ্রমিকদের সপ্তাহে ১-২ দিন কাজ করিয়ে তাদের মাধ্যমে প্রতিদিনের কাজের বিপরীতে টাকা উত্তোলন করে আত্মসাত করে যাচ্ছে। ২ সপ্তাহ ধরে কাজ করা হয়েছে বলে দাবি করা হলেও নির্ধারিত স্থানে কাজের উন্নয়নের চিত্র ও প্রকল্পের অস্তিত্বও খুঁজে পাওয়া যাবে না এমন অভিযোগ সচেতন মহলের। রাস্তা নির্মাণ বা সংস্কারের নামে পুরনো রাস্তার ওপর শুধু প্রলেপ দিয়ে কাজ শেষ করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ সত্য নয় দাবি করে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) বাকী বিল্লাহ বলেন, তার মতে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ ভালভাবেই হচ্ছে।

জানা যায়, ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার, টেগ অফিসার কর্মসৃজন প্রকল্পের নামে হতদরিদ্রদের জন্য সরকারের বরাদ্দকৃত মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। ইতোপূর্বেও কর্মসৃজন প্রকল্পের নামে লুটপাটের ঘটনায় কয়েকবার উচ্চ পর্যায়ের তদন্তদল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কর্মসৃজন প্রকল্পের অস্তিত্ব খুঁজে পাননি। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে প্রতিবছর দুইবার করে অতিদরিদ্রদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি সরকার এলাকার অবকাঠামো উন্নয়ন ও গ্রামীণ রাস্তাঘাট, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংস্কারের জন্য কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়ে থাকে। কর্মসংস্থান প্রকল্পে প্রথম পর্যায়ে গত বছরের ২০ ডিসেম্বর ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ৩১টি প্রকল্পের মাধ্যমে কার্ড প্রদান করা হয় ১হাজার ৩২৭ জনকে। কয়েকজন মাত্র শ্রমিককে কাজে এনে নামে-বেনামে লিপিবদ্ধ শ্রমিকের কাছ থেকে টিপ-দস্তখত আদায় করে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার সহয়তায় লুটেরা সিন্ডিকেট আত্মসাত করে নিয়েছে লাখ লাখ টাকা।