১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

গাজার পরিস্থিতি দুর্বিষহ ॥ কার্টার


সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার জেরুজালেম সফরে এসে শনিবার বলেছেন, গাজা ভূখ-ে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের ৮ মাস পরও সেখানকার পরিস্থিতি দুর্বিষহ এবং বাসিন্দারা যথাযথ সম্মান ও মর্যাদার সঙ্গে বসবাস করতে পারছে না। খবর গার্ডিয়ান অনলাইনের।

কার্টার ও তার প্রতিনিধিদলের বিচ্ছিন্ন গাজা এলাকায় সফরে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অনির্দিষ্ট নিরাপত্তা উদ্বেগের উল্লেখ করে এ সপ্তাহের প্রথম দিকে তা বাতিল করা হয়। কার্টার জেরুজালেমে সাংবাদিকদের বলেন, পশ্চিমতীর ও গাজায় একটি ফিলিস্তিনী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কাজ করার জন্য এখনও দৃঢ় সঙ্কল্প তিনি। এ সফরে তার সঙ্গে রয়েছেন নরওয়ের সাবেক প্রধানমন্ত্রী গ্রো হার্লেম ব্রুন্ডটল্যান্ড ও সিনিয়র সদস্যরা। তিনি বলেন, যা দেখেছি এবং শুনেছি তা হচ্ছে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করার জন্য আমাদের দৃঢ়তা জোরদার করতে হবে কেবল। গাজার পরিস্থিতি দুর্বিষহ। ধ্বংসকর যুদ্ধের ৮ মাস পর বিধ্বস্ত একটি বাড়িও পুনর্নির্মাণ করা হয়নি এবং সেখানে মানুষ যথাযথ সম্মান ও মর্যাদা নিয়ে বসবাস করতে পারছে না। ইসরাইলী বাহিনী ও হামাস জঙ্গীদের মধ্যে ৫০ দিনের যুদ্ধে ২ হাজারের বেশি ফিলিস্তিনী নিহত হয়েছে। কার্টার (৯০) শনিবার শেষের দিকে রামাল্লায় ফিলিস্তিনী প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের সঙ্গে সাক্ষাত করেন এবং সাবেক নেতা ইয়াসির আরাফাতের সমাধিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন। কিন্তু কার্টারকে পরিহার করে চলেছেন ইসরাইলী নেতারা। কার্টার প্রেসিডেন্টের দায়িত্বে থাকাকালে প্রথমবারের মতো ইসরাইলী আরব শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরে মধ্যস্থতা করলেও ২০০৬ -এ তার লিখিত প্যালেস্টাইন : পিস নট এপার্থিড বইয়ের জন্য অবমাননাবোধ করেছে অনেক ইসরাইলী।