২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

নওগাঁয় সহস্রাধিক হেক্টর জমির পাকা ধান পানির অতলে


নজস্ব সংবাদদাতা, নওগাঁ ২ মে ॥ সদর উপজেলার দুবলহাটি ইউনিয়নের প্রতাপদহ মনসুর বিলে হঠাৎ করেই পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে বিল এলাকার অন্তত সহ¯্রাধিক হেক্টর জমির পাকা বোরো ধান তলিয়ে গেছে। তলিয়ে যাওয়া ধানগুলি কেটে ঘরে তুলতে পারছে না কৃষক। দিনমজুর কামলারাও ৪ শ’ টাকা দিন চুক্তিতেও পানিতে ডুবারী করে ধান কাটতে চাইছেনা। বাজারে ধানের দাম কম, তার ওপর জমি থেকে ধান কেটে ঘরে তুলতে না পেরে সংশ্লিষ্ট কৃষকরা হতাশ হয়ে পড়েছেন।

শুক্রবার দিনভর ওই বিলপাড়ে ঘুরে এবং বিলপাড়ের প্রতাপদহ গ্রামের কৃষক আব্দুস সাত্তার, শ্রীধন মন্ডল, পরিমল মন্ডল, নজরুল ইসলাম ও রবীন্দ্র মন্ডলের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তাদের এই দূর্দশার কথা। তারা জানান, হঠাৎ করেই বিলের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় তাদের জমির পাকা বোরো ধান তলিয়ে গেছে। ধান কাটার জন্য অধিক মজুরীতেও কামলা মিলছেনা। গেল বছর যেখানে দিনে ৩ শ’ টাকায় কামলা মিলতো, সেখানে এবার ৪ শ’ টাকা দিনেও কামলা মিলছেনা। কৃষকদের মতে, এবার মৌসুমের শুরু থেকেই আবহাওয়া অনুকুলে থাকা, সার-কীটনাশক সহজলভ্য থাকায় ধানের ফলনও হয়েছে ভাল। কিন্তু বাজারে ধানের দাম নেই। যে দামে ধান বিক্রি হচ্ছে, তাতে কৃষকের উৎপাদন খরচ উঠবেনা। বর্তমানে হাটে-বাজারে মোটা হাইব্রিড ধান বিক্রি হচ্ছে, প্রতি মন (৪০ কেজি) ৪২৫ টাকা, খাটো-১০ জাতের ৪৩০ থেকে ৪৪০টাকা, ব্রি-২৮ জাতের ধান প্রতি মন ৫১০ থেকে ৫২৫ টাকা, জিরাশাইল ৫৫০ টাকা থেকে ৬০০ টাকায়। নওগাঁ জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক সত্যব্রত সাহা জানান, চলতি মৌসুমে জেলায় বোরো চাষ হয়েছে, ২লাখ ১ হাজার ২০০ হেক্টর জমিতে। লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে এবার উৎপাদন হয়েছে চাউল আকারে প্রতি হেক্টরে ৪ দশমিক ১ মেঃটন। আপাতত বাজারে ধানের দাম কম থাকলেও কৃষকের উৎপাদন বেশী হয়েছে। পরবর্তীতে এ দাম বাড়তে পারে বলেও ধারনা করছেন তিনি।

সুন্দরবনের দস্যু শুকুরের চোখ উৎপাটন করে পুলিশে সোপর্দ

স্টাফ রিপোর্টার, বাগেরহাট ॥ সুন্দরবনের বনদস্যু শুকুর আলীকে আটকের পর তার দুই চোখ উৎপাটন করেছে জনতা। শুক্রবার রাত ১টার দিকে বাগেরহাট জেলার রামপাল উপজেলার চাকশ্রী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শনিবার সকালে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়। শুকুর আলী রামপালের বারইপাড়া গ্রামের দলিল উদ্দিদ হাওলাদারের ছেলে। রামপাল উপজেলার বাইনতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ফকির আবদুল্লাহকে গত ২৮ এপ্রিল হত্যার উদ্দেশে তার বাড়ি ব্রীচাকশ্রী এলাকায় রাতে হানা দিয়ে বনদস্যু শুকুর তাকে গুলি করেছিল। তবে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হওয়ায় তাকে হত্যার চেষ্টা ব্যর্থ হয়। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে এক রাউন্ড তাজা গুলি ও এক রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়। গুলি করে তড়াতাড়ি পালানোর সময় বনদস্যু শুকুর তার ব্যবহৃত মোবাইল সেটটিও ঘনাস্থলে ভুলক্রমে ফেলে যায়।