২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ডাকাতি ঠেকাতে সব ব্যাংকে অটো এ্যালার্ম লাগানো হচ্ছে


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ডাকাতি ঠেকাতে দেশে কার্যরত সব ব্যাংকের প্রতিটি শাখায় অটো এ্যালার্ম লাগানো হবে। বুধবার মতিঝিলে বাংলাদেশে ব্যাংকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ব্যাংকার্স সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়া প্রতিটি ব্যাংক শাখায় নিরাপত্তা প্রহরী নিয়োগের ক্ষেত্রে অন্তত একজন আনসার সদস্য নিয়োগের বিষয়ে প্রস্তাব করা হয়। ব্যাংকগুলোতে উচ্চ পদে অধিক সংখ্যক নারী নিয়োগ এবং ব্যাংক কর্মকর্তাদের চাকরি থেকে বিনা কারণে অপসারণ ও ইস্তফা পরবর্তী সময়ে আর্থিক সুবিধা নিশ্চিতকরণ নিয়েও আলোচনা হয় বৈঠকে। সভায় গবর্নর ড. আতিউর রহমানসহ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের উর্ধতন কর্মকর্তারা এবং বিভিন্ন ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় নেপালে সাহায্য পাঠানোর বিষয়ে আলোচনা হয়।

সভা শেষে ডেপুটি গবর্নর এস কে সুর চৌধুরী সংবাদ সম্মেলনে ব্যাংকার্স সভার আলোচ্য বিষয় সম্পর্কে সাংবাদিকদের অবহিত করেন। এ সময় এ্যাসোসিয়েশন ব্যাংকার্স অব বাংলাদেশের (এবিবি) চেয়ারম্যান আলী রেজা ইফতেখার চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। ডেপুটি গবর্নর বলেন, কমার্স ব্যাংকের সাম্প্রতিক ঘটনার কারণে এবারের সভায় ব্যাংক শাখার নিরাপত্তা নিয়ে বেশি আলোচনা হয়েছে। বিশেষ করে, প্রচলিত এবং বিদ্যমান ব্যবস্থার বাইরে কি করা যায় তা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ সময় ব্যাংকারদের পক্ষ থেকে অটো এ্যালার্ম চালুর প্রস্তাব দেয়া হলে তাতে সকলেই সম্মতি জানায়। তিনি জানান, কয়েকটি ব্যাংক ইতোমধ্যেই এ সুবিধা চালু করেছে। এবিবি চেয়ারম্যান আলী রেজা ইফতেখার চৌধুরী জানান, অটো এ্যালার্ম হলো এমন একটি ব্যবস্থা যাতে পুলিশ, র‌্যাব ও ব্যাংকের হেডকোয়ার্টারসহ দশটি গুরুত্বপূর্ণ নাম্বারে অটো কল দেয়ার ব্যবস্থা থাকবে। এতে কোন ব্যাংকে দুর্ঘটনা ঘটলে সুইচ চাপ দিলেই অনবরত কল যেতে থাকবে। তিনি বলেন, এ ব্যবস্থা গ্রহণ করলে ডাকাতি হয়ত ঠেকান যাবে না, তবে ক্ষয়ক্ষতি কমানো যাবে। তিনি আরও বলেন, ব্যাংকগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিতে সবাই একমত হয়েছেন। এছাড়া নেপালের জন্য ব্যাংকগুলো ইতোমধ্যে কম্বল জমা দেয়া শুরু করেছে। যা দ্রুত পাঠানো হবে। এস কে সুর চৌধুরী আরও জানান, এবারের সভায় কমার্স ব্যাংকে ডাকাতির সময় নিহত ব্যক্তি এবং নেপালের ভূমিকম্পে মৃতদের স্মরণে শোক প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। একই সঙ্গে নেপালে সাহায্য পাঠানোর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।