২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

এবার তোর কি হবে রে প্রতীক?...


অন্তু একাধারে একজন র‌্যাম্প মডেল, থিয়েটারকর্মী, অভিনয়শিল্পী, মিউজিশিয়ান। একজন ভাল বন্ধু হিসেবেও কাছের ও মিডিয়া জগতে পরিচিতি রয়েছে তার। অফুরন্ত প্রাণচাঞ্চল্যের অধিকারী আর কাজের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এই মডেলের মিডিয়ায় যাত্রাটা ছিল স্বপ্নের মতো। অন্তুর মিডিয়াতে

আসার গল্প নিয়ে

লিখেছেন পান্থ আফজাল

‘এবার তোর কি হবে রে প্রতীক?’ হুম হবে ... এবং পর্দার জনপ্রিয় প্রতীক চরিত্রের সেই ছেলেটির ক্ষেত্রে হয়েছেও তাই। এই ব্যাপারটা প্রথমে আর কেউ না বুঝলেও দেশের বিজ্ঞাপন নির্মাতা মোস্তফা সারোয়ার ফারুকীর নির্মিত বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অন্তু নামের সুদর্শন ছেলেটি রাতারাতি সবার মুখে মুখে পরিচিত হন প্রতীক নামে। অন্যদিকে একজন বারবিকিউয়ান হিসেবেও সবার নজর কাড়ে একটি চমৎকার বিজ্ঞাপনের বদৌলতে।

অনেক আগে থেকেই মিডিয়ায় কাজ করার ইচ্ছা থাকলেও থিয়েটার আর র‌্যাম্প দিয়ে অন্তুর যাত্রা শুরু। অন্তু নিজে মনে করেন, বাস্তব জীবনের অন্তু এবং পর্দার প্রতীক সম্পূর্ণ আলাদা জগতের দুটি মানুষ। এদের একজনের সঙ্গে আরেকজনের কোন মিল নেই। সর্বদা মুখে হাসি লেগে থাকা অন্তু ভাল কাজের ব্যাপারে কোন ছাড় দিতে রাজি নন। আনন্দকণ্ঠের সঙ্গে আড্ডায় তিনি বলেন, ‘ব্যাসিকেলি একজন ভাল মডেল হতে গেলে, প্রথমেই কাজকে সম্মান দিতে জানতে হবে, সময় জ্ঞান থাকতে হবে, কাজের প্রতি মনোযোগী হতে হবে। মূল কথা, কাজের প্রতি ভালবাসা না থাকলে এ পেশায় না আসাই উত্তম।’

অন্তুর জন্ম ১৯৯১ সালে। নির্দিষ্ট প্রিয় কোন পোশাক না থাকলেও ভালবাসেন রিকশায় চড়তে, মজা করে বিরিয়ানির স্বাদ নিতে আর ভালবাসেন অবসর সময়ে গান গাইতে। আর ফেসবুক ম্যানিয়া? আছে, তবে অবসরে যতটুকু সময় পান। স্মার্টফোন ব্যবহারে অন্তু নিজেকে ১০ এর মধ্যে ৮ দেবেন। সফল এই মডেলের মিডিয়ায় বিচরণ প্রায় আড়াই বছর ধরে এবং জীবনের প্রথম কাজ ছিল একটি মোবাইল ফোনসেটের বিজ্ঞাপন। তার ক্যারিয়ারে করা এই পর্যন্ত সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কাজ হচ্ছে এখানেই.কমের সিরিজ বিজ্ঞাপনগুলো। এছাড়া ২০১৩ সালে রবির বেশ কিছু বিজ্ঞাপনের জন্যে দর্শকনন্দিত হয়েছিল সে। সাম্প্রতিক সময়ে রুচি চানাচুরে একজন বারবিকিউয়ান নামক বিজ্ঞাপন খুবই জনপ্রিয় হয়েছে।

‘যেহেতু বিজ্ঞাপন দিয়ে আমি সকলের মাঝে পরিচিতি লাভ করেছি, তাই আমি বিজ্ঞাপনকেই বেশি প্রাধান্য দেব’, কথা প্রসঙ্গে এ কথা বলল অন্তু। ইদানীং ব্যস্ততার মধ্যে সময় পার করছে অন্তু। সামনে বেশ কিছু বিজ্ঞাপন ও বড় পর্দায় কাজের ব্যাপারে কথা হচ্ছে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনী ও চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সঙ্গে। সে মনে করেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশের মিডিয়া একটি শক্ত পর্যায়ে রয়েছে, ভাল ভাল নির্মাতা রয়েছেন এবং ভাল ভাল কাজ তারা নির্মাণ করছেন, ভবিষ্যতে দর্শকদের জন্য ভাল কিছু কাজ উপহার দিতে চাই। বড় পর্দার প্রতি মানুষের পুরোনো প্রেম জাগিয়ে তুলতে লড়াই করব।’ মজার ব্যাপার হলো, অন্তুর মিউজিকের প্রতি আলাদা একটা দুর্বলতা আছে। এছাড়াও ভাল গীতিকার এবং কম্পোজার হিসেবে পরিচিত মহল চেনেন তাকে। মডেলিংয়ে বেশি পরিচিত হলেও অন্তুর ইচ্ছা, অভিনয় আর মিউজিক নিয়ে জীবন পার করতে।