২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বিএনপির ভোট বর্জনে ব্যবসায়ী সমাজে নতুন করে শঙ্কা


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ নির্বাচনের দিন বিএনপির ভোট বর্জনকে দুঃখজনক বলে মনে করছেন দেশের ব্যবসায়ী সম্প্রদায়। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন বর্জনের মধ্যে নতুন কোন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য রয়েছে বলেও আশঙ্কা তাদের। ভোট বর্জন ইস্যুতে দেশে আর যেন হরতাল-অবরোধ না হতে পারে সে প্রত্যাশা রয়েছে ব্যবসায়ীদের। এছাড়া ইস্যু সৃষ্টি করে বিএনপি-জামায়াত যাতে হরতাল-অবরোধের মতো কর্মসূচী দিতে না পারে সেজন্য জনমত গড়ে তোলার উদ্যোগ নেবে ব্যবসায়ী সম্প্রদায়।

এদিকে, ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই নেতৃবৃন্দ প্রত্যাশা করেছিল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের মধ্যদিয়ে দেশে আবার সুষ্ঠু ধারার রাজনীতি ফিরে আসবে। বন্ধ হবে হরতাল-অবরোধ। কিন্তু ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ তিন সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেয় বিএনপি। এই ঘোষণার পর থেকে ব্যবসায়ীদের মধ্যে নতুন শঙ্কা তৈরি হয়েছে। তারা মনে করছে, বর্জনের মধ্যে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ জনকণ্ঠকে বলেন, বিএনপির ভোট বর্জন সত্যিই দুঃখজনক। ভোট গ্রহণ শেষ হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে দলটি থেকে যে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ভোট বর্জনের ঘোষণা দিল তাতে আমরা হতাশ হয়েছি। এই বর্জন কোন অসৎ উদ্দেশ্য থেকে করা হয়েছে কি না সেটাই এখন দেখার বিষয়। তিনি বলেন, সকাল বেলা বিএনপির প্রার্থীরা ভোট দিয়েছেন এবং তারা জয়ের ব্যাপারেও আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন। আর এত বড় নির্বাচনে দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনাও অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু তাই বলে নির্বাজন বর্জন বিএনপির জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত হয়নি। বিএনপি যদি ভোট বর্জনই করবে তাহলে ইলেকশনে আসল কেন?

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, ভোট বর্জনের পরও কোন কোন কেন্দ্রে বিএনপি মেয়র প্রার্থী ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা ভোটে এগিয়ে ছিলেন। কোথাও তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছেন। ভোটের এই হালচিত্র দেখে মনে হয় বর্জনটা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। তিনি বলেন, গত কয়েক মাসের হরতাল-অবরোধে দেশের অর্থনীতির অনেক বড় ক্ষতি হয়েছে। আর এক মাস পর নতুন বাজেট ঘোষণা করা হবে। দেশের এই বাস্তবতায় ভোট বর্জনের ইস্যুতে বিএনপি যদি আবার আগের অবস্থানে ফিরে যায় সেটাই হবে অমঙ্গলজনক।

জানা গেছে, বিএনপির ভোট বর্জনে পোশাক রফতানিকারকদের মধ্যেও হতাশা বিরাজ করছে। তাদের আশঙ্কা ভোট বর্জনের নামে বিএনপি-জামায়াতের নতুন উদ্দেশ্য রয়েছে। তিন সিটির নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে বলে দাবি করেছেন পোশাক খাতের উদ্যোক্তারা।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিজিএমইএর সহসভাপতি রিয়াজ-বিন-মাহমুদ সুমন জনকণ্ঠকে বলেন, গত কয়েক মাসের হরতাল-অবরোধে আন্তর্জাতিক বাজারে এ খাতের ইমেজ প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছিল। এই নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ফিরে আসবে এটাই প্রত্যাশা করছি। তবে যেকোন দলের ভোট বর্জন দুঃখজনক বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: