১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বিএনপি‘র তিন সিটি নির্বাচন বর্জন


স্টাফ রিপোর্টার ॥ অনিয়ম, কারচুপি ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে তিন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন বর্জনের ঘোষনা দিয়েছে বিএনপি।

মঙ্গলবার দুপুরে নয়াপল্টনের বিএনপি কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ।

এসময় তার সঙ্গে ছিল ঢাকা উত্তর সিটি করর্পোরেশনের মেয়র প্রার্থী আবিথ আউয়াল ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করর্পোরেশনের মেয়র প্রার্থী মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজা আব্বাস।

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ বলেন, সরকার ‘চিরকুট’ ব্যবস্থা চালু করেছে। ‘চিরকুট’ থাকলে ভোটারদেরকে কেন্দ্রে যেতে দিচ্ছে, না হয় বের করে দিচ্ছে। তিনি বলেন, একটা কোন নির্বাচন নয়। এখানে সরকারের লোক নিজেদেরকে ভোট দিচ্ছে।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন নিয়ে আশংকা ছিল। তারপরও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে বলে আশা করেছিলাম। দেখা গেলো নির্বাচন কমিশন, ৠাব ও পুলিশ মিলে সরকারের ইচ্ছা পূরণ করছে।

মওদুদ আহমেদের অভিযোগ অনেক কেন্দ্রে পোলিং এজেন্টকে যেতে দেয়নি। অনেক জায়গায় কেন্দ্র থেকে বের দেয়া হয়েছে। এছাড়া অনেক কেন্দ্রে সকাল ৯টার আগে ভোট হয়ে গেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক এমাজ উদ্দিনকে ঢাকা কলেজ কেন্দ্রে ভোট দিতে গেলে তাঁকে লাঞ্ছিত করা হয় বলে অভিযোগ করেন মওদুদ আহমেদ।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য বলেন, ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করর্পোরেশন ও চট্টগ্রাম সিটি করর্পোরেশনে প্রমাণ হলো এদেশে গণতন্ত্র নেই। আমাদের আশা ছিল নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। মানুষ তাদের ভোটের অধিকার পাবে। তাই আদর্শ ঢাকা আন্দোল নির্বাচনে প্রার্থী দেয়। ২০ দলীয় জোট তাতে সমর্থন দেয়।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করর্পোরেশনের মেয়র প্রার্থী মির্জা আব্বাসের স্ত্রী আফরোজা আব্বাস বলেন, কোন কেন্দ্রে তাদের এজেন্টকে ঢুকতে দেয়া হয়নি। ফকিরাপুলে এজেন্টদেরকে মারধর করা হয়। তাকেও লাঞ্ছিত করায় হয় বলে তিনি অভিযোগ করেন।

এছাড়া বিভিন্ন কেন্দ্রে ঢুকে পোলিং এজেন্টদেরকে গ্রেফতার করার অভিযোগ আনেন মির্জা আব্বাসের স্ত্রী।

ঢাকা উত্তর সিটি করর্পোরেশনের মেয়র প্রার্থী আবিথ আউয়াল বলেন, গতকাল রাতে তার নির্বাচনী ক্যাম্প ভেঙ্গে দেয়া হয়। তার পোলিং এজেন্টদেরকে মারধর করা হয়। বাড্ডায় গণমাধ্যম কর্মীদের কেন্দ্রে প্রবেশে বাধা দেয়। তেজগাঁওর এক কেন্দ্রে তার পোলিং এজেন্টকে মারধর করে বের করে দেয়ার অভিযোগ এনে তিনি নির্বাচন বর্জনের ঘোষনা দেন।

এর আগে দুপুর ১১টার দিকে চট্টগ্রামে এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মনজুর আলম।