১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বরিশালে স্কুলছাত্রের হাত ভেঙ্গে দিল শিক্ষক


স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ ক্লাসে পড়া না পাড়ার অজুহাতে জেলার উজিরপুর উপজেলার কারফা পাবলিক একাডেমির এক ৮ম শ্রেণীর ছাত্রকে পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে দিয়েছে শিক্ষক। গুরুতর আহত অবস্থায় মঙ্গলবার রাতে ওই ছাত্রকে গৌরনদীর মৌরি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। জানা গেছে, কারফা গ্রামের তপন কুমার বিশ্বাসের পুত্র ও অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র বাপন বিশ্বাস (১৩)। মঙ্গলবার ইংরেজী ক্লাসে বাপন পড়া না পাড়ায় শিক্ষক ননী গোপাল হালদার ক্ষিপ্ত হয়ে জোড়া বেত দিয়ে তাকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। এতে বাপনের বাম হাত ভেঙ্গে যায়। সূত্রে আরও জানা গেছে, স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুশীল ওঝার শ্যালক ইংরেজী শিক্ষক ননী গোপাল হালদারের কাছে যেসব শিক্ষার্থী প্রাইভেট পড়ে না তাদের কারণে অকারণে পিটিয়ে আহত করা হয়। অভিযোগের ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক সুশীল ওঝার বক্তব্য পাওয়া যায়নি। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আলী আহাদ বলেন, অভিযোগ তদন্ত করা হবে।

চট্টগ্রামে ভাগ্নেকে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি ॥ মামা গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে চার বছর বয়সী ভাগ্নেকে অপহরণ করে ৬ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেছে এক মামা। তার নাম খোরশেদ আলম (২০)। সিএমপির বাকলিয়া থানা পুলিশ মঙ্গলবার রাত এগারটার দিকে ফটিকছড়ি থানার আদর্শ গ্রাম এলাকা থেকে অপহৃত শিশু রাইদ বিন কামালকে উদ্ধার করে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খোরশেদ আলম নগরীর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ইলেকট্রনিকস বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি সাতকানিয়া উপজেলার ছমদর পাড়ায়। নগরীর বাকলিয়া থানার আবদুল লতিফ হাট ব্যাংক কলোনি এলাকায় বড় বোন শাহীন আক্তারের বাসায় থাকত সে। গত সোমবার বেলা ১১টার দিকে সে ভাগ্নেকে নিয়ে বের হয়। এরপর দুপুরেও শিশুটি ফেরত না আসায় খোরশেদকে ফোন করে সন্তানের বিষয়ে জানতে চান শাহীন আক্তার। জবাবে খোরশেদ জানায়, সে রাইদকে বাসার গেটে পৌঁছে দিয়ে গেছে। এরপর আশপাশে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে খোরশেদ বাসায় এসে নিজেই এলাকায় মাইকিংয়ের ব্যবস্থা করে।

রাজশাহীতে হরতালে তীব্র যানজট

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলার প্রতিবাদে ২০ দলীয় জোটের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালের কোনরকম প্রভাব পড়েনি রাজশাহীতে। বুধবার সকাল ৬টা থেকে এ হরতাল কর্মসূচী শুরু হলেও নগরের প্রত্যাহিক জীবনযাত্রা ছিল স্বাভাবিক গতিতেই। বরাবরের মতো বুধবারেও হরতালের সমর্থনে মাঠে নামেনি বিএনপিসহ ২০ দলের কোন নেতাকর্মী। এমনকি নগরীর কোথাও হরতালের সমর্থনে কোন মিছিল হয়নি। সকাল থেকে রাজশাহী-ঢাকাসহ বিভিন্ন রুটের দূরপাল্লার বাস চলাচল করছে যথারীতি। স্বাভাবিক ছিল আন্তঃজেলাসহ সব রুটের বাস চলাচলও। সকাল থেকেই মহানগরের সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট, মনিচত্বর, গোরহাঙ্গা রেলগেট, শিরোইল বাস টার্মিনাল এলাকায় তীব্র যানজট দেখা গেছে।

রাজশাহী রেলস্টেশন থেকে সকালে ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেন সিল্কসিটি এক্সপ্রেস, খুলনাগামী কপোতাক্ষ, বরেন্দ্রসহ বিভিন্ন রুটের আন্তঃনগর ও লোকাল মেইল ট্রেন যথাসময়ে গন্তব্যের উদ্দেশে ছেড়ে যাচ্ছে।