২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

অধিগ্রহণ করা জমির ক্ষতিপূরণ দাবিতে মানববন্ধন


নিজস্ব সংবাদদাতা, নড়াইল ২২ এপ্রিল ॥ নড়াইলের কালনা ফেরিঘাটে সেতু নির্মাণের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমির ক্ষতিপূরণের দাবিতে নড়াইল ও গোপালগঞ্জ জেলার ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকরা মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০ টায় কালনা ফেরিঘাটের পশ্চিমপাড়ে দুই জেলার শতাধিক পরিবারের ৩ শতাধিক নারী-পুরুষ ঘণ্টাব্যাপী এসব কর্মসূচীতে অংশ নেন। শুধু ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারই নয় এই কর্মসূচীতে অংশ নেন সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান। মানববন্ধনে অংশ নেয়া সংসদ সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান বলেন, উদর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে চাপিয়ে নিরন্ন মানুষের বিরুদ্ধে সড়যন্ত্র করা হচ্ছে। প্রশাসন বলতে চায় এখানকার মানুষ জমির কোন ক্ষতিপূরণ পাবে না। কারণ এদের নামে কোন রেকর্ড নেই। এক সময় এখানে নদী ছিল। নদীতে চর পড়েছে। চর জাগার পর রেকর্ড প্রস্তুত করার দায়িত্ব ছিল প্রশাসনের। তারা তা না করে জনগণের ক্ষতি করেছে। আমি খুব সত্বর এইসব জমি মালিকদের নামে জমির মালিকানা ফিরিয়ে দিয়ে তাদের ন্যায্যমূল্য দেয়ার দাবি জানাচ্ছি।

এ সময় লোহাগাড়া ইউপি চেয়ারম্যান বদর খোন্দকার, মোঃ হেমায়েত হোসেন, আফরোজা আক্তার, মোঃ বেলায়েত হোসেন ও মফিজুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

পাওনা টাকা দাবিতে গাজীপুর পেপার মিল অফিস ঘেরাও

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর, ২২ এপ্রিল ॥ সম্প্রতি গাজীপুর পেপার এ্যান্ড বোর্ড মিল অফিস ঘেরাও মানববন্ধন করা হয়েছে। জানা গেছে, পেপার মিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালনার পুরনো কাগজ ব্যবসায়ীদের কাগজ বাকি নিয়ে কয়েক কোটি টাকা বছরের পর বছর আটকে রেখেছেন। এতে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা অর্থ সঙ্কটে দিনাতিপাত করছেন। মানববন্ধনকালে সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিম উপস্থিত হয়ে টাকা প্রদানের অনুরোধ জানান। এ সময় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ওয়েস্ট পেপার সাপ্লাই এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সহসভাপতি ও কোষাধ্যক্ষ।

মুন্সীগঞ্জে অগ্নিকা-ে দেড় হাজার মুরগির বাচ্চা পুড়ে ছাই

স্টাফ রিপোর্টার, মুন্সীগঞ্জ ॥ গজারিয়া উপজেলার আলীপুরা গ্রামের পোল্ট্রি খামারে অগ্নিকা-ে দেড় হাজার মুরগির বাচ্চা পুড়ে গেছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে এ ঘটনা ঘটে। পোল্ট্রি খামারের মালিক আব্দুর রব জানান, বসত বাড়ির পাশের মুরগির খামারটিতে ১০ দিন আগে দেড় হাজার মুরগির বাচ্চা তোলা হয়। দুই বছর আগে ধারদেনা করে প্রায় আড়াই লাখ টাকা খরচ করে মুরগির খামারটি করা হয়েছিল। আগুনের লেলিহান শিখা দেখে বাড়ির লোকজন আর্তচিৎকার শুরু করে। পরে আশপাশের লোকজন এসে প্রায় ৩ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নেভাতে সক্ষম হয়।