২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

যাদের একহাতে পেট্রোল বোমা, অন্য হাতে সাদা পতাকা, তাদের সঙ্গে সংলাপ নয়


স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ ও নিজস্ব সংবাদদাতা, সিদ্ধিরগঞ্জ ॥ স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, যাদের একহাতে পেট্রোলবোমা, অন্য হাতে সাদা পতাকা তাদের সঙ্গে কোন সংলাপ হতে পারে না। সরকার সংলাপে বিশ্বাসী উল্লেখ করে তিনি বলেন, আগে হাতের বোমা নামিয়ে এবং জঙ্গীবাদ বন্ধ করতে হবে। তারপরই সংলাপ হতে পারে।

ঢাকার দুটি এবং চট্টগ্রামের আসন্ন সিটি নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে করতে তিনি সবার সহযোগিতা কামনা করে বলেন, আমরা যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছি তাতে ’২১ সাল নয়, বরং ’১৯ সালের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে স্বনির্ভর দেশের স্বপ্ন দেখছেন, তা পূরণ সম্ভব হবে।

রবিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের আদমজীতে অবস্থিত র‌্যাব-১১ এর প্রধান কার্যালয়ে মাদক ধ্বংস কর্মসূচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশে আগে দারিদ্র্যের সীমা ছিল শতকরা ৪৫ ভাগ, তা এখন ২৩ ভাগে নামিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে। আপনারা মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক বিক্রেতাদের ধরিয়ে দিন। মাদক ব্যবসায়ীদের ছাড়াতে যারা থানায় তদ্বির নিয়ে আসবে তাদেরও আইনের হেফাজতে নিতে তিনি নির্দেশ দেন।

অনুষ্ঠান শেষে র‌্যাব-১১ এর উদ্ধার করা সোয়া ৭ কোটি টাকার বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য ধ্বংস করা হয়।

র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক (সিও) লে. কর্নেল আনোয়ার লতিফ খানের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন একেএম শামীম ওসমান এমপি, আইজি একেএম শহীদুল হক, র‌্যাব মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক বজলুর রহমান, চিত্রনায়ক অমিত হাসান, সিটি কাউন্সিলর আবদুর রহমান, দিপ্তী মাদকাসক্ত নিরাময় কেন্দ্রের পরিচালক মাসুদুর রহমান, মাদকাসক্ত আবুল হোসেন, সুস্থ জীবনে ফিরে আসা রাজু আহমেদ, রাজুর বাবা হুমায়ূন কবীর, না’গঞ্জ সরকারী মহিলা কলেজের শিক্ষক মাহফুজুর রহমান, ছাত্রী দেবিকা পোদ্দার।

শামীম ওসমান বলেন, মাদক নির্মূল করা কারও একার কাজ নয়। এ কাজ সবাইকে নিয়ে করতে হবে।

আইজি শহীদুল হক বলেন, আইন করে আর পুলিশ ও র‌্যাব দিয়ে মাদকের বিস্তার রোধ সম্ভব নয়। এ জন্য তিনি ব্যাপক জনগোষ্ঠীর সম্মিলিত আন্দোলন আর জন সচেতনতা গড়ে তোলার আহ্বান জানান। তিনি পুলিশ নয়, বরং জনগণের পক্ষেই সবকিছু করা সম্ভব ।

র‌্যাবের ডিজি বেনজির আহমেদ বলেন, যে কোন মূল্যে আমাদের মাদককে রুখে দাঁড়াতে হবে। ভারত ফেনসিডিল তৈরি করে। তারা খায় না। মিয়ানমার ইয়াবা তৈরি করে। তারাও খায় না, তাহলে আমাদের মাদকাসক্তরা কেন মাদক খায়।