২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বিনিয়োগকারীরা আলোর মুখ দেখছে


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ গেল সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) উভয়ে সূচক বেড়েছে। এ সময়ে ডিএসই ও সিএসইতে সূচক বেড়েছে যথাক্রমে ২৮ ও ১০২ পয়েন্ট।

ডিএসইতে গত সপ্তাহে শেষ কার্যদিবসে সূচক ছিল ৪৩৭৩ পয়েন্ট, যা আগের সপ্তাহে সূচক ছিল ৪৩৪৫ পয়েন্ট। এই এক সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক বেড়েছে ২৮ পয়েন্ট। সিএসইতে গত সপ্তাহে শেষ কার্যদিবসে সূচক ছিল ৮১৯২ পয়েন্ট, যা আগের সপ্তাহে সূচক ছিল ৮০৯০ পয়েন্ট। এই এক সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক বেড়েছে ১০২ পয়েন্ট।

এদিকে গেল সপ্তাহে ডিএসইতে মোট চার কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৭১০ কোটি ১ লাখ টাকা, যা আগের সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবসে লেনদেন ছিল ১ হাজার ৬৮১ কোটি ৫২ লাখ টাকা। গেল সপ্তাহে ডিএসই গড় লেনদেন হয়েছে ৪২১ কোটি ৫০ লাখ টাকা, যা আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ৩৩৬ কোটি ৪ লাখ টাকা। এ সময়ের ব্যবধানে গড় লেনদেন বেড়েছে ৯১ কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এর আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ৩৫৮ কোটি ৬ লাখ টাকা। এরও আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ২৯৭ কোটি ২২ লাখ টাকা।

সিএসইতে গত সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছে ৩৬ কোটি ১০ লাখ টাকা, যা আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ৩২ কোটি ১১ লাখ টাকা। এ সময়ের ব্যবধানে গড় লেনদেন বেড়েছে ৩ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। এর আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ২৮ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। এরও আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ৩২ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। এদিকে গেল সপ্তাহে চার কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছে ১৪৪ কোটি ৪২ লাখ টাকা। এর আগের সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছে ১৬০ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। নতুন প্ল্যাটফর্ম চালু হওয়ায় উভয় স্টকে সূচক রয়েছে ভাটা। সূূচক কমার কারণ ক্রেতা সঙ্কটে রয়েছে শেয়ারবাজারে। গত তিন মাস ধরেই শেয়ার ক্রয়ের চেয়ে বিক্রি হচ্ছে বেশি। তাই এখনও অনেকেই এই নতুন পদ্ধতিতে শেয়ার ক্রয়বিক্রয়ে বিপাকে রয়েছে। ফলে তিন মাস বেশি সময় অতিবাহিত হওয়ার পরও শেয়ারবাজারে লেনদেন কম হচ্ছে। কিন্তু গেল সপ্তাহের লেনদেনে ইতিবাচক প্রবণতায় বিনিয়োগকারীরা কিছুটা আলোর মুখ দেখছে। তাদের মধ্যে বাজার নিয়ে ইতিবাচক মনোভাব তৈরি হচ্ছে।

তাই বাজারের উন্নয়ন স্বার্থেই বর্তমান অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য পুরোপুরি জেনে, বুঝে লেনদেন করতে হবে। কারণ নতুন পদ্ধতিতে ব্যাপক সুবিধা রয়েছে এটা সত্যি। তাই বলে যে অসুবিধা নেই এমনটি নয়। তাই জেনে-বুঝে সতর্কভাবে না থাকলে নিজের বিনিয়োগ ঝুঁকিতে চলে যেতে পারে।