২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

অটিস্টিক শিশুদের নিয়ে কাজ করে বাংলাদেশ বিশ্বে সুনাম অর্জন করেছে ॥ কাজল


স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাতীয় সংসদের নারী সংসদ সদস্য (সংরক্ষিত) ও শিশু অধিকার বিষয়ক পার্লামেন্টারি কার্যকরী কমিটির (ককাস) সদস্য এ্যাডভোকেট উম্মে রাজিয়া কাজল বলেছেন, বাংলাদেশ অটিস্টিক শিশু নিয়ে কাজ করায় বিশ্বে সুনাম অর্জন করেছে। শিশুদের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, চিকিৎসা, বিনোদন উন্নয়নে বর্তমান সরকার শিশুবান্ধব বাজেট প্রণয়ন করেছে। মেধা-মননে বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যাতে শিশুরা চলতে পারে এ জন্য বছরের প্রথম দিনেই শিশুদের হাতে বই তুলে দিচ্ছে সরকার।

শনিবার রাজধানী ঢাকায় সেগুনবাগিচায় অবস্থিত ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ন্যাশনাল চিলড্রেন টাস্কফোর্স (এনসিটিএফ) ও চাইল্ড বাজেট ফোরাম (সিবিএফ) আয়োজিত এবং সেভ দ্য চিলড্রেনের সহযোগিতায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনিসিয়েটিভ ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট এ্যান্ড আনভারনারেবল বিভাগের শিক্ষক গওহর নাঙ্গম ওয়ারা বলেন, শিশু বাজেট আলাদা কোন বাজেট নয়, শিশুদের কল্যাণে সরকার বছরে কত টাকা ব্যয় করছে তা পরিমাপ করার মাপকাঠি হচ্ছে শিশু বাজেট। তিনি আরও বলেন, সরকার আগামী পাঁচ বছরে শিশুদের জন্য কী কী করবে, এটা শিশু বাজেটে থাকতে হবে। শিশু বাজেট মনিটরিং করবে মন্ত্রণালয়। এখানে একটা পার্লামেন্টারি কমিটি থাকতে পারে।

২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে শিশুদের উন্নয়নের জন্য ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়ার মাধ্যমে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত শিশু বাজেট ঘোষণা দেন। গত বাজেটে সরকারী ব্যয়ে এখন পর্যন্ত ৩২ ডে-কেয়ার সেন্টার চালু করা হয়েছে। আরও তিনটির নির্মাণ কাজ চলছে। চারটি গার্মেন্টস অধ্যুষিত এলাকায় দশটি ডে-কেয়ার সেন্টার ও ছয়টি শিশু বিকাশ কেন্দ্র স্থাপন করার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

শিশু বাজেটে শিশুদের অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে কিভাবে শিশু বাজেট বাস্তবায়ন করা হবে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধান অতিথি বলেন, এক্ষেত্রে আমরাই বেশি সজাগ। আশা করি বর্তমান সরকার এ সুযোগ দিতে পারবে। শিশু বাজেটের টাকা কিভাবে বস্তি, গ্রামগঞ্জে সকল শিশুর জন্য ব্যয় করা হবে তার জন্য অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব। শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ও মেধা বিকাশে শিশু ও মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় কাজ করে যাচ্ছে। ইতোমধ্যে শিশুদের শারীরিক নির্যাতন বন্ধ করতে সরকার পদক্ষেপ নিয়েছে। ঝরেপড়া শিশুর হার কমেছে। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বিশ্ব গড়ার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করছে। বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বিদেশী অনুদান লোপাট করছে কি-না এ ব্যাপারে সরকার কতটুকু সজাগ সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, সরকার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর নিবন্ধন দেয়। আর প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজের জবাবদিহিতা থাকতে হবে।

আরও বক্তব্য রাখেন সিবিএফ চেয়ারপার্সন ড. আবুল হোসেন ও সেভ দ্য চিলড্রেনের সিনিয়র ম্যানেজার চৌধুরী তাইয়ুব তাজামমুল।