২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মায়ের প্রচারাভিযানে উজ্জ্বল ভূমিকায় চেলসি


ক্লিনটন দম্পতির মেয়ে চেলসির সৌভাগ্য তারকা উদিত হচ্ছে। পত্রিকায় তার আলোকচিত্র প্রকাশ, সাক্ষাতকার গ্রহণ এবং পারিবারিক দাতব্য প্রতিষ্ঠানে তার ক্রমশ অধিক গুরুত্ব লাভ করার প্রেক্ষাপটে মায়ের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থিতায় তিনি একজন অত্যুৎসাহী উৎসাহদাতার (চিয়ারলিডার) ভূমিকার অবতীর্ণ হয়েছেন। সম্প্রতি দেড় হাজার ডলার মূল্যের গুচি পোশাক ও কার্টিয়ের ব্রেসলেট পরিহিত এই ৩৫ বছর বয়সী সমাজ-হিতৈষী, স্ত্রী ও নতুন মায়ের ছবি এল সামরিকীর প্রচ্ছদে ছাপা হয়েছে। সেই সঙ্গে প্রকাশিত হয়েছে একজন নারী নেত্রীর জন্য তার আকুল আবেদনের কথা। খবর এএফপির।

সপ্তাহান্তে তার মা হিলারি প্রচারাভিযান চালানোর কথা ঘোষণা করলে ওই ঝকঝকে চেহারার পত্রিকায় প্রকাশিত মন্তব্যে তিনি বলেন, আপনি যখন একজন নারী প্রেসিডেন্ট হওয়ার গুরুত্বের ব্যাপারে প্রশ্ন রাখেন তখন আমি বলব নিঃসন্দেহে এটি গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের দেশের একটি অন্যতম প্রধান মূল্যবোধ হলো আমাদের দেশে আছে সমান সুযোগ, তবে এই সমতার মধ্যে যদি লিঙ্গের বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত না থাকে তবে সেখানেই মৌলিক প্রশ্নটি ওঠে। আমার বিশ্বাস, আমরা প্রথম নারী প্রেসিডেন্ট পেলেÑ তা যখনই হোক বিষয়টির একটি সন্তোষজনক সমাধানে সহায়ক হবো।

সাবেক ফার্স্টলেডি, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিনেটর হিলারি ক্লিনটন কয়েক বছরের জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে রবিবার যখন ঘোষণা করেন তিনি আরেকবার হোয়াইট হাউসের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন, সে সময় চেলসি ঠিক তাঁর পাশেই ছিলেন। স্ট্যানফোর্ড, কলাম্বিয়া ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে লেখাপড়া করা হিলারিকন্যা তার ৮ লাখ ১৭ হাজার ৮শ’রও বেশি সমর্থকদের উদ্দেশে টুইট করে বলেন, ‘তোমার জন্য খুবই গর্বিত মম।’

এর একদিন আগে চেলসির ৬ মাস বয়সী মেয়ে শালটের পুশ চেয়ারে বসা একটি ছবি প্রথমবার প্রকাশিত হয়। ছবিতে ম্যানহাটনের রাস্তায় উজ্জ্বল সূর্যালোকে শিশু শালটকে মা, বাবাও কুকুরসহ পথ চলতে দেখা যায়। শিশুটি হিলারির ভাবমূর্তিতে নমনীয়তা নিয়ে এসেছে। যে নারীকে (হিলারি) দূরের ও শীতল বলে মনে হয় তিনি একজন নানী হতে পেরে আনন্দ প্রকাশ করে বলেছেন, তারা (মেয়ে ও নাতনি) আমাকে নতুনভাবে পৃথিবীকে দেখতে সাহায্য করেছে। চেলসি নিজেও পারিবারিক সিদ্ধান্ত গ্রহণের অংশ হতে পেরে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেছে, সে সমকামী বিবাহ এবং ক্লিনটন ফাউন্ডেশনের অগ্রাধিকার দানের ব্যাপারে তার পিতামাতার মতামতকে প্রভাবিত করতে পেরেছে।

এটা প্রথম দিকে হলেও চেলসিকে ইতোমধ্যে ২০০৮ এ হিলারির ব্যর্থ হোয়াইট হাউস প্রতিদ্বন্দ্বিতার চেয়ে বেশি করে প্রকাশ্যে দেখা যাচ্ছে। সেসময় (২০০৮) সে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে কুণ্ঠিত ছিল।

ক্লিনটন পরিবারের বন্ধুবান্ধব ও সহযোগীদের সঙ্গে সাক্ষাতকারের ভিত্তিতে পলিটিকো সাময়িকী লিখেছে। মায়ের প্রচারাভিযানে এবং ভবিষ্যতে হোয়াইট হাউসের সম্ভাব্য নেতৃত্ব গ্রহণে চেলসি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব হয়ে ওঠার প্রস্তুতি নিচ্ছে। কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক প্রধান রবার্ট শ্যাপিরো বলেন, তরুণ ভোটার ও নারীদের কাছে চেলসির আবেদন হিলারির নারী ও পরিবারের ওপর গুরুত্বারোপকে নতুন মাত্রা দিয়েছে।