২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রংপুর ১২ ঘণ্টা বিদ্যুতবিহীন


স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর ॥ নববর্ষের মধ্যরাত থেকে বুধবার বেলা ১০টা পর্যন্ত প্রায় ১২ ঘণ্টা রংপুর মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা বিদ্যুত বিচ্ছিন্ন ছিল। এতে প্রচণ্ড গরমের মধ্যে চরম ভোগান্তির মুখে পড়তে হয়েছে নগরবাসীকে। কেন এই বিচ্ছিন্ন এ নিয়ে গ্রাহকরা বিদ্যুত বিভাগের অভিযোগ কেন্দ্র এবং কোন প্রকৌশলীর ব্যক্তিগত কিংবা সরকারী মোবাইলে রিং করলেও ফোন রিসিভ করেননি কেউই। ফলে কেউই জানতে পারেননি এর কারণ। এ নিয়ে চরম ক্ষুব্ধ হয়েছে গ্রাহকরা। তারা বলছেন বিদ্যুতের জরুরী অভিযোগ, অনুসন্ধান কিংবা মোবাইল রিসিভ করবেন না প্রকৌশলী কর্মচারীরা, এমনটা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

জানা গেছে, মঙ্গলবার রাত ১টার পরই নগরীর প্রাণকেন্দ্র কামারপাড়া, মুলাটোল, সেনপাড়া, গুপ্তপাড়া, কামাল কাছনা, শালবনসহ বেশ কিছু এলাকা বিদ্যুতবিহীন অন্ধকারে নিমজ্জিত হয়। এতে করে তীব্র গরমে চরম ভোগান্তির মুখে পড়তে হয় নগরবাসীকে। সকালে এ প্রতিবেদকও বেশ কয়েকবার তাকে ফোন করলে তিনি রিসিভ করেননি। পরে সকাল সাড়ে ৯টায় মোবাইল রিসিভ করে প্রকৌশলী আব্দুল কাদের গনি বিদ্যুত বিচ্ছিন্নের এই বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না উল্লেখ করে তিনি ছুটিতে আছেন বলে জানান।

নববর্ষে দর্শনার্থীর হাত ছিঁড়ে নিয়েছে বাঘ

গাজীপুর সাফারি পার্ক

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর, ১৫ এপ্রিল ॥ বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কে বেড়াতে আসা দর্শনার্থী এক যুবকের হাত ছিঁড়ে নিয়েছে রয়েল ‘বেঙ্গল টাইগার’। আহত দর্শনার্থীর নাম অংকন (২৬)। তার বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের রেঞ্জ কর্মকর্তা শিবুপ্রসাদ ভট্টাচার্য ও ফরেস্টার কৃষ্ণকমল মজুমদার জানান, বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে পহেলা বৈশাখ মঙ্গলবার অংকন নামের এক যুবক পার্কে বেড়াতে আসে। দুপুর দেড়টার দিকে সে পার্কের টাইগার এরিয়ার রেস্টুরেন্টের পাশে দেয়ালের উপরে উঠে নেটের ফাঁকে হাত বাড়িয়ে দূরে থাকা একটি বাঘকে ডাকতে থাকে। এ সময় দেয়ালের পাশে থাকা অপর একটি বাঘ ঝাঁপিয়ে পড়ে অংকনের বাঁ হাত কামড়ে ধরে। এ সময় অন্য দর্শনার্থীরা অংকনকে রক্ষা করতে তাকে টেনে ধরে। বাঘ ও দর্শনার্থীদের টানাটানির একপর্যায়ে অংকনের বাঁ হাতটি কুনুই থেকে ছিঁড়ে যায়। পরে অংকনের ছেঁড়া হাতটি নিয়ে বাঘ চলে যায়। পরে আশপাশের লোকজন গুরুতর আহত অংকনকে হাসপাতালে প্রেরণ করে।