১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ফরিদপুরে ৬১ ওষুধের দোকান বন্ধের নির্দেশ


নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ১২ এপ্রিল ॥ মূল্য বেশি রাখা, রোগীদের স্বজনদের সাথে অসৌজ্যমূলক আচরন করাসহ নানাবিধ অভিযোগে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে অবস্থিত ৬১টি ওষুধের দোকান বন্ধ করে দিয়েছে প্রশাসন। শনিবার রাত নয়টার দিকে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে সব ওষুধ দোকান বন্ধের নির্দেশ দেন। রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত কোন ওষুধের দোকান খোলা পাওয়া যায়নি। ঔষধের দোকান বন্ধ থাকায় হাসপাতালে ভর্তি রোগীরা সমস্যার মধ্যে পড়েছে। দীর্ঘদিন ধরে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে থাকা ওষুধের দোকানগুলোতে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে কয়েকগুন বেশি মূল্য রাখার অভিযোগ ছিল। তাছাড়া ওষুধের দোকানগুলোর দালাল চক্রের দ্বারা রোগী ও তাদের স্বজনেরা ছিল জিম্মি। ৯ এপ্রিল ফরিদপুরের ভাংগায় স্মরনকালের ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনায় ২৫জন নিহত ও ১৮জন আহত হয়। আহতদের ভর্তি করা হয় ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। বাস দুর্ঘটনায় আহত এক রোগীর স্বজন অভিযোগ করে বলেন, তিনি দেড় হাজার টাকার ওষুধ কিনলেও তার কাছ থেকে সাড়ে তিন হাজার টাকা রাখা হয়েছে। এ নিয়ে কথা বললে তাকে দোকান থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়। রোগীদের স্বজনেরা জেলা প্রশাসক সরদার সরাফত আলীর কাছে অভিযোগ করেন। এরই প্রেক্ষিতে শুক্রবার ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে আটক করেন সিকদার মেডিকেল হলের কর্মচারী সোহেল রানা এবং রাজবাড়ী ফার্মেসীর মালিক মোঃ সাঈদকে।