২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

রানাপ্লাজা ধসে নিহত তহুরার পরিবার আজও সাহায্য পায়নি


নিজস্ব সংবাদদাতা, পাবনা, ১২ এপ্রিল ॥ সাভারের রানা প্লাজা ধসে নিহত পাবনার আটঘরিয়ার তহুরা বেগমের রেখে যাওয়া প্রতিবন্ধী শিশু জিহাদসহ হতদরিদ্র পরিবার আজও সরকারী সাহায্য ও কোন প্রকার ক্ষতিপূরণ পায়নি। তহুরার লাশ দাফনের পর হতদরিদ্র পঙ্গু পিতা প্রতিবন্ধী নাতিকে নিয়ে ক্ষতিপূরণ ও সাহায্যের আশায় সরকারের বিভিন্ন দফতরে লিখিত আবেদন করেও আজ পর্যন্ত সাহায্য পায়নি। ফলে একমাত্র উপার্জনকারী মেয়ে হারা পরিবার মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে। তহুরার অসহায় পিতা শেষ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেছেন। জানা গেছে, কর্মরত অবস্থায় রানা প্লাজা ধসে তহুরার মৃত্যু হয়। ২৭ এপ্রিল ২০১৩ ঢাকা জেলা প্রশাসক ও উদ্ধারকর্মী সেনা সদস্যদের কাছ থেকে নিহত তহুরা বেগমের ২৯৭ নম্বর লাশ গ্রহণ করে নিহতের বাবা সোবহান। ওইদিন মেয়ের লাশ নিয়ে বাড়ি আসার পথে সিরাজগঞ্জ বাঘাবাড়ী নামক স্থানে লাশবাহী এ্যাম্বুলেন্সটি দুর্ঘটনার শিকার হয়। এ সময় এ্যাম্বুলেন্সের হেল্পার ও দুইজন পথচারী ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। এ্যাম্বুলেন্সের চালক ও তহুরা বেগমের বাবা সোবহান মারাত্মক জখম হয়। এরপর বিশেষ ব্যবস্থায় তহুরার লাশ গ্রামের গোরস্তানে দাফন করা হয়। তহুরার বৃদ্ধ বাবা বেশ কিছুদিন পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়ার পর সরকারের দেয়া ক্ষতিপূরণ ও অনুদান পাওয়ার জন্য পাবনা জেলা প্রশাসন, আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং ভূমিমন্ত্রী বরাবর আবেদন করেন।