১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

ব্যবসায়ীদের সভা রূপ নিল আনিসুল হকের নির্বাচনী সভায়


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ এবার ব্যবসায়ী সমাজের পূর্ণ সমর্থন পেলেন ঢাকা উত্তর সিটি নির্বাচনে মেয়রপ্রার্থী আনিসুল হক। রবিবার দুপুরে রাজধানীর মহাখালীতে রাওয়া কনভেশন সেন্টারে ‘তৈরি পোশাক শিল্পের বর্তমান অবস্থা ও ভবিষ্যত কর্মপন্থা’ নিয়ে মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হলেও ব্যবসায়ী সংগঠনের নেতারা আনিসুল হকের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তাঁর জন্য ভোট প্রার্থনা করেন। পোশাক শিল্পের সঙ্কট নিয়ে কম আলোচনা হলেও সভায় সব বক্তার আলোচনার মূল ইস্যু ছিল আনিসুল হককে ভোট দেয়ার আহ্বান। সমাপনী বক্তব্যে বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম উপস্থিত ব্যবসায়ীদের প্রতিশ্রুতি নেন আনিসুল হককে সমর্থনের।

বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ’র যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ সভার মূল বিষয় ছিল ‘পোশাক শিল্পের বর্তমান পরিস্থিতি ও শিল্পকে এগিয়ে নিতে নিকট ভবিষ্যতে করণীয়।’ বিজিএমইএ থেকেই এ সভার আমন্ত্রণ জানানো হয় গণমাধ্যমকে। এতে অংশ নেন সংগঠনগুলোর বর্তমান ও সাবেক নেতৃবৃন্দ। আলোচনার মধ্যমণি ছিলেন ঢাকা সিটি কর্পোরেশন উত্তরের মেয়রপ্রার্থী, বিজিএমইএ ও এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি আনিসুল হক। এছাড়া শেষ মুহূর্তে এসে বক্তব্য রাখেন এফবিসিসিআই সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ। তবে বক্তারা পোশাক শিল্প নিয়ে খুব সামান্যই বক্তব্য রেখেছেন। সবার বক্তব্যের মূল সূত্র ছিল সিটি নির্বাচন।

বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের পোশাক পরিবারের সদস্য যে মানুষ, আমাদের নানা সমস্যা যদি তাঁকে (আনিসুল হক) দিয়ে সমাধান হয় তাহলে সিটি নির্বাচনে তাঁর পাশে আমরা কেন থাকব না? এ সময় তিনি গার্মেন্টস মালিকদের অনুরোধ করেন যাতে তাঁরা শ্রমিকদের মাঠে নামান আনিসুলের পক্ষে। আতিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ। এ্যাকর্ড-এ্যালায়েন্স, ন্যাশনাল এ্যাকশন প্ল্যান, নতুন মূসক আইন, রানা প্লাজা ধস-পরবর্তী ভাবমূর্তি, পোশাকের মূল্য কমে যাওয়া, টাকা মূল্য বাড়ার বিপরীতে ইউরোসহ বিভিন্ন মুদ্রার মূল্য কমে যাওয়াসহ বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ আমাদের মোকাবেলা করতে হচ্ছে। এ জন্য আগামী বাজেটে পোশাক শিল্পের দিকে সরকারের বিশেষ নজর তিনি কামনা করেন। তিনি বলেন, আল্লাহর দোহাই, আল্লাহর দোহাই লাগে, আপনারা (রাজনীতিকরা) এমন কোন কর্মসূচী আর দেবেন না, যাতে অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি আনোয়ারুল পারভেজ চৌধুরী বলেন, ঢাকা সিটি যদি কমপ্লায়েন্ট করা না যায় তাহলে শিল্পকে কমপ্লায়েন্ট করা যাবে না। এ জন্য তিনি আনিসুল হককে বিজয়ী করার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে ৫০ বিলিয়ন ডলারের পোশাক রফতানির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।

বিকেএমইএ’র সহ-সভাপতি আসলাম সানী বলেন, আজ আমরা একত্রিত হয়েছি আনিস ভাইকে সমর্থন দেয়ার জন্য। কেন আমরা তাঁকে সমর্থন দিচ্ছি? আমাদের শিল্পকে কমপ্লায়েন্টক করতে হবে। এ জন্য রাস্তা-ঘাট, অবকাঠামো দরকার। যা করে দিতে পারে সিটি কর্পোরেশন। ঢাকা যদি স্বাস্থ্যসম্মত নগরে পরিণত হয় তাহলে আমাদের ক্রেতারা এখানে আসতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন। মেয়রপ্রার্থী আনিসুল হক এ সময় বলেন, বিভিন্ন মত ও পথের মানুষ আজ এখানে একত্রিত হয়ে আমাকে যে সমর্থন দিয়েছেন তাতে আমি কৃতজ্ঞ। সবাইকে তিনি ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, জীবনের অনেকগুলো বছর পেরিয়ে আজ আমি এখানে দাঁড়িয়েছি। অনেক কিছু চাওয়া আর না পাওয়ার মধ্যে হঠাৎ একটি সুযোগ তিন সপ্তাহের মধ্যে জীবন পাল্টে দেবে কখনও ভাবিনি। সভায় বক্তব্য রাখেন বিজিএমইএ’র সাবেক সভাপতি আবদুস সালাম মুর্শেদী, সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, আসন্ন এফবিসিসিআই নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী আবদুল মাতলুব আহমেদ প্রমুখ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: