২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আল্লায় প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রীর হায়াত দেউকা, ভালা রাখাউকা


সালাম মশরুর, সিলেট অফিস ॥ ‘আল্লায় প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রীর হায়াত দেউকা। স্থানীয় এমপিরেও ভালা রাখউকা। তারার লাগি আমরার রাস্তা খান ফাক্কার ব্যবস্থা অইছে। আমরা অখন খুব খুশি। এই সরকাররেও আল্লায় ভালা রাখউকা।’ তৃপ্তি ভরে কথাগুলো বললেন কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার রনিখাই ইউনিয়নের বাসিন্দা মুহরম আলী। এই বক্তব্য এখন শুধু মুহরম আলীর নয়। সদর উত্তর কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষের। যাতায়াত ব্যবস্থার উন্নয়ন সাধনের জন্য সরকারের গৃহীত প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে এলাকায় এখন আনন্দের বন্যা বইছে। সিলেট কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ সড়ক গত ৮-১০ বছর যাবত মৃত্যু ফাঁদে পরিণত হয়ে আছে। ৩৭ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সড়কের সর্বত্র ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে যানবাহন চলাচলে অনুপযোগী হয়ে উঠেছে। প্রায় ৩০ কিলোমিটার রাস্তার পিচ সম্পূর্ণরূপে উঠে গেছে। সড়কটির জীর্ণদশার কারণে ভোলাগঞ্জ থেকে পাথর পরিবহনে ট্রাক ও অন্যান্য যানবাহন ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে। প্রতিদিন দুর্ঘটনায় যানমালের ক্ষতি সাধন হচ্ছে। সড়ক সংস্কারের দাবিতে দীর্ঘদিন যাবত বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন আন্দোলন চালিয়ে আসছে।

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে গত ৭ এপ্রিল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় সিলেট কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদিত হয়েছে। এ প্রকল্পে ৪৪১ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

বর্তমানে সিলেট কোম্পানীগঞ্জ-ভোলাগঞ্জ সড়ক সংস্কারের উদ্যোগে ব্যবসায়ী, এলাকাবাসী তথা বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের মধ্যে আশার সঞ্চার হয়েছে। এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে নতুন করে প্রাণের সঞ্চার হয়েছে। রাস্তাঘাট, রেস্টুরেন্ট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান সর্বত্র সবার মুখে মুখে শুধুই সড়ক সংস্কারের আনন্দ সংবাদ। এখন জরুরী ভিত্তিতে প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরুর দাবি সব মহলের।