২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

চন্দন সিনহার পুরস্কারে তারকাদের শুভেচ্ছা


প্রাপ্তির আনন্দ সবার সঙ্গে শেয়ার করতে কার না ভাল লাগে। আর তা যদি হয় দেশ সেরার স্বীকৃতি, তবে তো কথাই নেই! তেমনই এক সেলিব্রেশন পার্টি হয়ে গেল গত ৫ এপ্রিল ঢাকা ক্লাবের সিনহা লাউঞ্জে। সন্ধ্যা থেকেই তা ছিল তারকা শিল্পীদের আলোকোজ্জ্বলতায় মুখর। তবে ছিল না কোন আনুষ্ঠানিকতা। স্রেফ আনন্দ আড্ডার আয়োজন। সাংবাদিক শ্যামল দত্তের আমন্ত্রণে সবাই হাজির হয়েছিলেন প্রাণের তাগিদেই নিজেরা কিছুটা সময় কাটানোর জন্য। তারকাদের ভিড়ে ছিলেন দেশ বরেণ্য সিনিয়র সাংবাদিকসহ তরুণ বিনোদন সাংবাদিকরাও। এবারের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চন্দন সিনহা (সেরা কণ্ঠশিল্পী) গীতিকার কবির বকুল (চতুর্থবারের মতো পুরস্কারপ্রাপ্ত), কৌশিক হোসেন তাপস ( সেরা সঙ্গীত পরিচালক), শওকত আলী ইমনকে (সেরা সঙ্গীত পরিচালক) শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন মৌ, আফসানা মিমি, বন্যা মির্জা, জাহিদ হাসান, আবিদা সুলতানা-রফিকুল আলম দম্পতি, কনকচাঁপা-মঈনুল ইসলাম দম্পতি, আলিফ-ফয়সাল দম্পতিসহ অনেকে। এছাড়াও অন্যান্য গুণী অতিথির ভেতরে ছিলেন প্রখ্যাত সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুল, মুন্নী সাহা, মোজাম্মেল বাবু, নঈম নিজাম, কু-েশ্বরী ঔষধালয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত ব্যক্তিত্ব টিআর সিনহা। যিনি চন্দন সিনহার চাচা। গুণী আর তারকাদের এই মিলনমেলা প্রসঙ্গে চন্দন সিনহা বলেন, ‘সত্যি মানুষের কিছু সময় আসে যখন নিজেকে বড় সার্থক মনে হয়। আমি সারা জীবনে খুব বেছে বেছে কাজ করেছি, কিন্তু ভাল কাজ করার চেষ্টা করেছি। তারই সুফল পাচ্ছি এখন।

চন্দন সিনহার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্তি প্রসঙ্গে অনুষ্ঠানে আগত বিশেষ অতিথি প্রখ্যাত কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী বলেন, ‘আমি চন্দনের নিষ্ঠাকে স্যালুট জানাই। ও নিজেও খুব চুপচাপ। সবসময় মিডিয়ার প্রচারেও নেই। আবার কাজও করে কম। কিন্তু একটানা গানের সঙ্গে লেগে আছে। একটু একটু করে গাইছে নিয়মিত। তারই ফলাফল আজ সে পেল। আমি ওর প্রতি শুভ কামনা জানাতেই আজকের অনুষ্ঠানে এসেছি।

আনন্দকণ্ঠ ডেস্ক